জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতর্কে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে নিজের ক্ষোভ জানালেন রাষ্ট্রপতি

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার মঞ্চে একাধিক শিল্পী, কলাকুশলীর পুরস্কার না নেওয়ার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর দফতরে নিজের ক্ষোভ জানালেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। গত ৩ মে, নয়া দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে আয়োজিত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কর প্রদানের মঞ্চে মাত্র ১১ জন পুরস্কার প্রাপককে পুরষ্কার তুলে দেন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ। জানানো হয়, নয়া প্রোটোকল অনুযায়ী কোনও সমাবর্তন বা পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে রাষ্ট্রপতি এক ঘণ্টার বেশি উপস্থিত থাকতে পারবেন না। কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বাকি প্রাপকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন। এর প্রতিবাদ জানিয়ে বাকি প্রায় ৬০ জন পুরস্কার প্রাপক অনুষ্ঠানে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এই ইস্যুতে দেশজোড়া বিতর্ক শুরু হলে শেষ পর্যন্ত শনিবার স্বয়ং রাষ্ট্রপতি নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সচিব অশোক মালিক জানিয়েছেন, নয়া প্রোটোকলের বিষয়টি আগেই সমস্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রককে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছিল। নয়া বিধি অনুসারে কোনও সমাবর্তন বা পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মঞ্চে একঘণ্টার বেশি থাকতে পারবেন না রাষ্ট্রপতি। তারপরেও এই ধরনের বিতর্ক অনভিপ্রেত।
‘লাদাখ চলে রিক্সাওয়ালা’ তথ্যচিত্রটির জন্য পশ্চিমবঙ্গ থেকে এবছর জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন তথ্যচিত্র নির্মাতা ইন্দ্রাণী চক্রবর্তী। thebengalstory.com কে তিনি জানিয়েছেন, দিল্লিতে পুরস্কার নিতে যাওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের পক্ষ থেকে তাঁদের যে আমন্ত্রণ পত্র পাঠানো হয়েছিল সেখানে বলা হয়েছিল, রাষ্ট্রপতি তাঁদের সকলের হাতে পুরস্কার দেবেন। কিন্তু অনুষ্ঠানের আগের দিন রিহার্সালের সময় তাঁরা জানতে পারেন, ১০ থেকে ১১ জনের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন রাষ্ট্রপতি। এতে তাঁরা অপমানিত বোধ করেন। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার কিছুক্ষণ পর কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী নিজে পুরস্কার প্রাপকদের আশ্বাস দেন, বিষয়টি রাষ্ট্রপতির দফতরকে জানানোর। কিন্তু তার পরেও সমস্যার সমাধান না হওয়ায়, জাতীয় পুরস্কার বয়কট না করলেও, অনুষ্ঠনের দিন বিজ্ঞানমঞ্চে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন ৬৯ জন।

Comments
Loading...