কারা এই প্রুডেন্ট ইলেক্ট্রোরাল ট্রাস্ট, যারা বিজেপিকে ১৫৪ কোটি টাকারও বেশি টাকা অনুদান দিয়েছে

নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া দেশের বিভিন্ন জাতীয় রাজনৈতিক দলের আয়ের তথ্যের উপর ভিত্তি করে সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস (এডিআর)। রাজনৈতিক দলগুলির ২০ হাজার টাকার বেশি অনুদান পাওয়ার নিরিখে এই রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে। এই রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৭-১৮ অর্থ বর্ষে সবকটি জাতীয় দলের প্রাপ্ত মোট ৪৭০ কোটি টাকা অনুদানের মধ্যে বিজেপি একাই পেয়েছে ৪৩৭ কোটি টাকা। অনুদানকারীর সংখ্যা ২৯৭৭।
অন্যদিকে,কংগ্রেস ৭৭৭ টি সংস্থার মাধ্যমে অনুদান পেয়েছে ২৭.৬৫৮ কোটি টাকা।
এডিআর-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, বিজেপির এই বিপুল প্রাপ্য অনুদানের অধিকাংশই এসেছে প্রুডেন্ট ইলেক্টোরাল ট্রাস্ট নামের একটি বেসরকারি সংস্থার তরফ থেকে। গত ২০১৭-১৮ অর্থ বর্ষে এই সংস্থাটি বিজেপিকে সর্বাধিক ১৫৪.৩০ কোটি টাকা সাহায্য করেছে। কংগ্রেসকে এই সংস্থাটি দিয়েছে ১০ কোটি টাকা।


আরও পড়ুনঃ জাতীয় দলগুলির প্রাপ্ত ৪৭০ কোটি টাকা অনুদানের মধ্যে বিজেপি একাই পেয়েছে ৪৩৭ কোটি, কংগ্রেস ২৬ কোটি, সিপিএম ২.৭৫৬ কোটি, তৃণমূল ২০ লক্ষ টাকা

 


 

কিন্তু কারা এই প্রুডেন্ট ইলেক্টোরাল ট্রাস্ট? কী তাদের পরিচয়?
জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৫ অক্টোবর তৈরি হয় এই সংস্থাটি। সংস্থাটির দফতর দিল্লিতে। বর্তমানে এই সংস্থায় দু’জন ডিরেক্টর রয়েছেন। তাঁরা হলেন মুকুল গয়াল ও গনেশ ভেনকাটাচালাম। দু’জনই দিল্লির বাসিন্দা এবং দু’জনই দুটি করে সংস্থার ডিরেক্ট র পদে রয়েছেন। এই প্রুডেন্ট ইলেক্টোরাল ট্রাস্টকে আবার যে সব বাণিজ্যিক সংস্থা অর্থ সাহায্য করে সেই তালিকায় রয়েছে, রিয়াল এস্টেট সংস্থা ডিএলএফ, ভারতী গোষ্ঠী, গুজরাতস্থিত টরেন্ট গোষ্ঠী ইত্যাদি। সূত্রের খবর, গত অর্থ বর্ষে প্রুডেন্ট ইলেক্টোরাল ট্রাস্টকে প্রায় ৩৩ কোটি টাকা অর্থ সাহায্য করেছে ভারতী গোষ্ঠী। আরও জানা গেছে, এক সময় এই সংস্থার বোর্ডে ভারতী গ্রুপের একাধিক প্রতিনিধিও ছিলেন। জানা গেছে, ২০১৩ সালে এই সংস্থার দফতর ছিল দিল্লির নেলসন ম্যান্ডেলা মার্গের ভারতী গ্রুপের অফিসেই। পরে তা ২০১৪ সালে স্থানান্তর হয়ে যায় দিল্লির বাহাদুর শাহ জাফর মার্গে।
গত অর্থ বর্ষে বিজেপিকে দ্বিতীয় সর্বাধিক ডোনেশন (১৩.৫০ কোটি) প্রদানকারী বেসরকারি সংস্থার নাম এবি জেনারেল ইলেক্টোরাল ট্রাস্ট। মুম্বইস্থিত এই সংস্থাটি তৈরি হয়েছে ২০১৭ সালের ৩১ মে। বর্তমানে এই সংস্থায় আছেন তিন জন ডিরেক্টর। আইডিয়া সেলুলারসহ আদিত্য বিড়লা গোষ্ঠীর একাধিক সংস্থা এদের আর্থিক সাহায্য করে থাকে।

Comments
Loading...