রাফাল চুক্তি নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত। কয়েকদিন আগেই ইংরেজি সংবাদমাধ্যম, ‘দ্য হিন্দু’তে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল, রাফাল ডিল নিয়ে গঠিত প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের নির্দিষ্ট কমিটির পাশাপাশি, হস্তক্ষেপ করেছিল প্রধানমন্ত্রীর দফতর। যা নিয়ে প্রশ্ন তুলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এক সিনিয়র আধিকারিক নোট পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীর দফতরে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই এই ইস্যুতে কেন্দ্রকে তোপ দেগেছিলেন রাহুল গান্ধী। বিবৃতি দিতে হয়েছিল প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকে। সেই বিতর্কের রেশ কাটতে না কাটতেই ‘দ্য হিন্দু’তে প্রকাশিত অন্য একটি প্রতিবেদন নিয়ে শুরু হল নয়া বিতর্ক।
বুধবার ‘দ্য হিন্দু’ সংবাদমাপত্রের সম্পাদক এন রামের লেখা ‘রাফাল ডিল নট অন বেটার টার্মস দ্যান ইউপিএ এরা’ শীর্ষক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, রাফাল চুক্তির সময় ৭ সদস্যের ইন্ডিয়ান নেগোশিয়েটিং টিম (আইএনটি) এর মধ্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ৩ সিনিয়র অফিসার নরেন্দ্র মোদী সরকারের আমলে হওয়া রাফাল ডিলের খরচ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এমনকী তাঁরা এও জানিয়েছিলেন, যুদ্ধ বিমান ডেলিভারি দিতে অনেক বেশি সময় নিচ্ছে ফ্রান্স।
২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ভারত এবং ফ্রান্সের মধ্যে রাফাল চুক্তি সই হয়। ‘দ্য হিন্দু’র এই প্রতিবেদনে প্রকাশ, এর মাস তিনেক আগে একটি ৮ পাতার নোট লেখেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ৩ অফিসার। এম পি সিংহ, এ আর সুলে এবং রাজীব ভার্মা, এই ৩ অফিসার প্রায় এক মাস ধরে এই নোটটি লেখেন বলে ‘দ্য হিন্দু’ সংবাদপত্রে প্রকাশ। তাঁরা ওই নোটে জানান, যুদ্ধ বিমানের যে দাম ফ্রান্স নির্ধারণ করেছে তা যুক্তিসঙ্গত নয়। পাশাপাশি, বরাত দেওয়া ৩৬ টি যুদ্ধ বিমানের মধ্যে ১৮ টি যুদ্ধ বিমান ডেলিভারি দিতে ফ্রান্স অনেক বেশি সময় নিচ্ছে বলেও ওই নোটে জানিয়েছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ওই ৩ অফিসার। তাঁরা এই নোটটি আইএনটি’র চেয়ারম্যানের কাছে জমা দেন বলে ‘দ্য হিন্দু’ সূত্রে জানা গিয়েছে।
‘দ্য হিন্দু’র এই প্রতিবেদন সামনে আসার সঙ্গে সঙ্গেই এদিন প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি। রাহুল গান্ধী ট্যুইটারে লেখেন, প্রধানমন্ত্রী রাফাল যুদ্ধ বিমান নিয়ে যে দুটি বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করতেন তা হল, ভালো দাম এবং দ্রুত ডেলিভারি। সেই দুটি দাবিই ‘দ্য হিন্দু’র প্রতিবেদনে নস্যাৎ করে দেওয়া হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত এক বছর ধরে রাফাল ডিলে দুর্নীতির অভিযোগ এনে সরব হয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি। তিনি বারবার দাবি করেছেন, রাফাল ডিলে অনিল আম্বানীর কোম্পানিকে বিশেষ সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

You may also like