লোকসভায় সরকারের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবের আলোচনার মাঝেই প্রধানমন্ত্রীকে আলিঙ্গন রাহুল গান্ধীর

‘আমাকে বিজেপি নেতারা ‘পাপ্পু’ বলে ডাকেন, আমার প্রতি আপনাদের মনে হিংসা আছে। কিন্তু আমি আপনাদের সবাইকেই ভালোবাসি। দেশে এই সংস্কৃতিই চালু করেছে কংগ্রেস।’ শুক্রবার লোকসভায়, সরকারের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে আলোচনায় অংশ নিয়ে একথা বলতে বলতেই, সবাইকে অবাক করে নিজের আসন থেকে উঠে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে জড়িয়ে ধরলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ঘটনায় হকচকিয়ে যান স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীও। পরে নিজেকে সামলে নিয়ে রাহুলের সঙ্গে হাত মেলান এবং তাঁর আলিঙ্গন গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রীও। রাহুলের পিঠে হাত দিয়ে তাঁকে কিছু কথা বলতেও শোনা যায় তাঁকে। ঘটনায় হকচকিয়ে যায় লোকসভায় উপস্থিত অন্যান্য সাংসদরাও। রাহুলের এদিনের এই ব্যবহারকে নাটক বলে মন্তব্য করেছেন একাধিক বিজেপি সাংসদ। তাঁদের কটাক্ষ, সংসদ নাটকের জায়গা নয়, উনি বরং বলিউডে যোগ দিন। পাঞ্জাবের সাংসদ হরশিমরাত কৌর বাদল রাহুলের এই কীর্তি দেখে এদিন মন্তব্য করেছে,’এটা সংসদ। জাদু কী ঝাপ্পি দেওয়ার জায়গা নয়। রাহুল মুন্নাভাই ছবি দেখে এসে এই সব কান্ডকারখানা করছেন।’

এ রআগে এদিন, অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে বলতে উঠে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চোখা চোখা আক্রমণে বিদ্ধ করেন রাহুল। রাহুল এদিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজেকে দেশের চৌকিদার বলে দাবি করলেও তিনি দুর্নীতির ভাগিদার। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে রাহুলের এদিনের মন্তব্য,’উনি আমায় দেখে হাসছেন। কিন্তু সেই হাসিতেও অস্বস্তি ধরা পড়ছে। সরাসরি আমার চোখের দিকে তাকানোর ক্ষমতা নেই তাঁর।’
ফ্রান্সের থেকে রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনা নিয়ে তিনি বলে, এই চুক্তি থেকে বিজেপি ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী কোটি কোটি টাকা লুটে নিয়েছেন। লোকসভায় রাহুল গান্ধী এদিন বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার গোপনীয়তার কথা বলে ফ্রান্সের সঙ্গে রাফাল-চুক্তি নিয়ে বিস্তারিত তথ্য দিতে চাইছে না কিন্তু ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট তাঁকে জানিয়েছেন যে, এই চুক্তিতে কোনও গোপনীয়তার কথা বলা নেই। কংগ্রেস সভাপতির এই বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ করেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। তিনি বলেন কোনও প্রমাণ ছাড়া মিথ্যা কথা বলছেন রাহুল, বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন সংসদকে। পরে সভায় পুরনো নথি দেখিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জানান, ফ্রান্সের সঙ্গে রাফাল চুক্তি ২০০৮ সালে কংগ্রেস আমলে সই হয়। দেশের তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী একে অ্যান্টনির সই আছে সেই চুক্তিতে। যেখানে স্পষ্টভাবে গোপনীয়তার কথা বলা হয়েছে। সংসদে প্রমাণ ছাড়া মিথ্যা কথা বলার অভিযোগে রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে প্রিভিলেজ মোশন এনেছে বিজেপি।

Comments
Loading...