#মিটুঃ এবার এম জে আকবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করলেন মার্কিন নিবাসী ভারতীয় সাংবাদিক

একাধিক মহিলাকে যৌন হেনস্থার অভিযোগের জেরে সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিতে বাধ্য হয়েছেন প্রাক্তন সাংবাদিক, সম্পাদক এবং বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর। এবার তাঁর বিরুদ্ধে সরাসরি ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিবাসী এক প্রবাসী ভারতীয় মহিলা সাংবাদিক। ‘দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই মহিলা সাংবাদিক জানিয়েছেন, প্রায় দু’দশক আগে তিনি কাজ করেছেন এম জে আকবরের সঙ্গে। তাঁর অভিযোগ, আকবর ‘দ্য এশিয়ান এজ’ সংবাদপত্রের মুখ্য সম্পাদক পদে থাকার সময় একদিন জয়পুরের এক হোটেলে ডেকে তাঁকে ধর্ষণ করেন। এর আগে মুম্বইয়ের এক হোটেলের ঘরেও তাঁকে একা পেয়ে জোর করে চুম্বন করেছিলেন আকবর। অন্য উদ্দেশ্য থাকলেও সেসময় তিনি ধাক্কা মেরে আকবরকে সরিয়ে দেওয়ায় সে যাত্রায় কোনওক্রমে বেঁচে গিয়েছিলেন। কিন্তু জয়পুরে শেষ রক্ষা হয়নি। পাশাপাশি, আকবরের বিরুদ্ধে অভব্য আচরণ, গালিগালাজ করা ও মানসিক হেনস্থার অভিযোগও এনেছেন বর্তমানে আমেরিকার ন্যাশনাল পাবলিক রেডিওতে কর্মরত এই মহিলা সাংবাদিক।
এই মহিলা সাংবাদিক জানান, দু’দশক আগে মাত্র ২২ বছর বয়সে তিনি ‘দ্য এশিয়ান এজ’ পত্রিকায় যোগ দিয়েছিলেন। কিছুদিনের মধ্যে আকবর তাঁকে গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়ে আসেন। আর তার জন্যই তাঁকে এই কঠিন মূল্য চোকাতে হয়েছে। সেই সময় আকবর একদিন তাঁকে জয়পুরের হোটেলে ডেকে ধর্ষণ করেন। চেষ্টা করেও তিনি বাধা দিতে পারেননি। কেউ বিশ্বাস করবে না, এই আশঙ্কায় তিনি কাউকে অভিযোগও জানাতে পারেননি।
ট্যুইটারে পরে এই মহিলা সাংবাদিক জানিয়েছেন, ভারতে যে সব মহিলা আকবরের কুকীর্তি সামনে এনে তাঁর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন, তাঁদের সমর্থনে তিনিও মুখ খুললেন। আকবরের বিরুদ্ধে সত্যকে সম্বল করে তাঁদের সঙ্গে মিলে লড়াইয়ের কথাও বলেছেন তিনি। যদিও এই অভিযোগ মানতে চাননি আকবরের আইনজীবী।
উল্লেখ্য, গত এক মাসে কম করে ২০ জন ভারতীয় মহিলা সাংবাদিক মুখ খুলেছেন আকবরের বিরুদ্ধে। কেউ এনেছেন যৌন হেনস্থার অভিযোগ, কেউ বলেছেন অভব্য এবং অশালীন আচরণের কথা। এরপর দেশজোড়া বিতর্ক ও বিরোধীদের চাপে পড়ে গত মাসের মাঝামাঝি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন আকবর। এবার তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠায় আরও চাপে পড়লেন এই প্রাক্তন সাংবাদিক, সম্পাদক।

Comments
Loading...