‘বেসুরো’ শতাব্দী! TMC সাংসদের ফেসবুক ফ্যানস ক্লাবের পোস্ট ঘিরে জল্পনা

এবার তৃণমূলের তারকা সাংসদ শতাব্দী রায়ও বিজেপিতে?

সামনে বাংলার বিধানসভা ভোট। চলছে দলবদলের পালা। এই প্রেক্ষিতে তৃণমূলের তিনবারের সাংসদ শতাব্দী রায়ের ফেসবুক ফ্যানস ক্লাব পেজের পোস্ট ঘিরে শুরু হল তীব্র জল্পনা।

বৃহস্পতিবার ‘শতাব্দী রায় ফ্যানস ক্লাব নামে এক ফেসবুক পেজে একটি দীর্ঘ পোস্টে লেখা হয়, ‘ইদানিং অনেকে আমাকে প্রশ্ন করছেন কেন আমাকে বহু কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে না। আমি তাঁদের বলছি যে আমি সর্বত্র যেতে চাই। আপনাদের সঙ্গে থাকতে আমার ভালো লাগে। কিন্তু মনে হয় কেউ কেউ চায় না আমি আপনাদের কাছে যাই। বহু কর্মসূচির খবর আমাকে দেওয়া হয় না। না জানলে আমি যাব কী করে?’

এই পোস্টে আরও লেখা হয়, ‘গত দশ বছরে আমি আমার বাড়ির থেকে বেশি সময় আপনাদের কাছে বা আপনাদের প্রতিনিধিত্ব করতে কাটিয়েছি, আপ্রাণ চেষ্টা করেছি কাজ করার, এটা শত্রুরাও স্বীকার করে। তাই এই নতুন বছরে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করছি যাতে আপনাদের সঙ্গে পুরোপুরি থাকতে পারি।’ পোস্টের শেষের দিকে আরও তাৎপর্যপূর্ণ ইঙ্গিত, ‘যদি কোনো সিদ্ধান্ত নিই আগামী 16 জানুয়ারি 2021 শনিবার দুপুর দুটোয় জানাব।’

সেই গত বছর থেকে নাগরিকত্ব আইন, এনআরসি-র বিরোধিতা করে যখন পর পর সভা করে চলেছেন বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল, তার কোথাও দেখা মেলেনি এলাকার সাংসদ শতাব্দী রায়ের। বহুবার আলোচনায় উঠে এসেছে বীররভূমের রাজনীতিতে জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে সাংসদ শতাব্দী রায়ের দূরত্বের কথা। গত ২৯ ডিসেম্বর বোলপুরে মমতার সভা ও র‍্যালিতে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে শতাব্দীকে দেখা গেলেও তখন ধারেকাছে ছিলেন না অনুব্রত।

এই প্রেক্ষিতে শতাব্দীর ফেসবুক ফ্যানস ক্লাব পেজের এই পোস্ট ঘিরে জোর শোরগোল রাজনৈতিক মহলে। তবে ব্লুটিক বিহীন এই ফেসবুক পেজে শতাব্দীর নিজস্ব বার্তাই পোস্ট হয়েছি কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকে। এনিয়ে তৃণমূল নেতৃত্ব কোনও মন্তব্য করতে চাননি। এই প্রেক্ষিতে প্রশ্ন উঠছে সাংসদ সুনীল মন্ডলের মতো শতাব্দীও কি গেরুয়া শিবিরে যোগ দেবেন? চলছে তীব্র জল্পনা।

Comments
Loading...