বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগে ধৃত আরএসএস নেতাকে আনা হল কলকাতায়, গয়না চুরির নয়া অভিযোগ

রাজ্য বিজেপির এক মহিলার নেত্রীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগে ধৃত আরএসএস নেতা ও প্রচারক অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায়কে শনিবার গভীর রাতে দিল্লি থেকে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়েছে। দিন কয়েক আগে তাঁকে দিল্লি থেকে গ্রেফতার করেছিল কলকাতা পুলিশ। কিন্তু অমলেন্দুবাবুর শারীরিক অবস্থা ঠিক না থাকায় তাঁকে কলকাতায় নিয়ে আসা যায়নি। পুলিশ সূত্রে খবর, দিল্লির আদালতের নির্দেশে এক দিনের ট্রানজিট রিমান্ডে তাঁকে কলকাতায় আনায় হয়েছে। রবিবার তাঁকে কলকাতায় আদালতে তোলা হয়।

গত ৩১ শে অগাস্ট তাঁর বিরুদ্ধে বেহালা মহিলা থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই মহিলা নেত্রী। অভিযোগ করেছিলেন, পূর্ব পরিচিতি ও একসাথে দলীয় সংগঠনের কাজের সুবাদে তাঁদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। অমলেন্দুবাবু বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁর সাথে দীর্ঘদিন সহবাস করেন। কিন্তু হঠাৎই গত ৮ অগাস্ট থেকে নিখোঁজ হয়ে যান ওই আরএসএস নেতা। বহুবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তাঁর সাথে বিশেষ যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি নেত্রী। এমনকী নেত্রীর অভিযোগ, তাঁর জমি, বাড়ির আসল কাগজপত্রও নিজের কাছে নিয়ে রেখেছেন ওই নেতা। এরপর তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, ওই মহিলা বিজেপি নেত্রী ফের অভিযোগ করেছেন, তাঁর আলমারির লকারের চাবিও থাকত অমলেন্দুবাবুর কাছে৷ কিন্তু এখন তিনি বহু মূল্যবান গয়না খুঁজে পাচ্ছেন না। নেত্রীর অভিযোগ, অমলেন্দুবাবুই সেগুলি সরিয়ে থাকতে পারেন।
উল্লেখ্য, বেহালা মহিলা থানায় এই বিজেপি নেত্রীর দায়ের করা অভিযোগে সর্বভারতীয় আরএসএস নেতা শিবপ্রকাশেরও নাম আছে। তাঁর বিরুদ্ধে বল পূর্বক আটকে রাখা, শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ করেছেন নেত্রী। কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগে নাম রয়েছে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের। এছাড়াও রাজ্য স্তরের এক বিজেপি ও এক আরএসএস নেতার নামও পুলিশকে জানিয়েছেন ওই নেত্রী।

Comments
Loading...