রাজ্যে মহিলা নিরাপত্তার ইস্যু তুলে ছাত্রীদের জন্য মার্শাল আর্ট ট্রেনিং কোর্স চালু করছে এসএফআই।

প্রায় সপ্তাহ দুয়েক ধরে রাজ্যজুড়ে খবরের শিরোনামে কলেজে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি। কলেজে-কলেজে ভর্তিকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ। পরিস্থিতি এমন, হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে। কলেজে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি প্রক্রিয়া নির্বিঘ্নে করতে নামতে হয়েছে পুলিশকেও। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বিরুদ্ধে যখন লাগাতার অভিযোগে সরগরম রাজ্য রাজনীতি, তখন এক অভিনব প্রচার অভিযানকে সামনে রেখে জনসংযোগে নামতে চলেছে উত্তর ২৪ পরগনায় সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআই।
রাজ্যে মহিলারা আক্রান্ত, ২০১১ সালের পর থেকে এই অভিযোগ বারবারই তুলেছে বিরোধী দল সিপিএম। রাজ্যে মহিলাদের বিরুদ্ধে আক্রমণ বাড়ছে এবং প্রশাসন নির্বিকার, এই অভিযোগে বহু প্রচার কর্মসূচিও নিয়েছে সিপিএমের মহিলা সংগঠন। কিন্তু মহিলাদের ওপর আক্রমণের ইস্যু তুলে ধরে এবার অভিনব প্রচারে উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর এলাকার এসএফআই ইউনিট।
রাস্তা-ঘাটে যে কোনও আক্রমণের মোকাবিলায় স্কুল-কলেজের ছাত্রীদের এক মাসের জন্য মার্শাল আর্ট শেখার কোর্স চালু করছে অশোকনগরের এসএফআই আঞ্চলিক কমিটি। আগামী ১৫ অগাস্ট অশোকনগরে এই কোর্স চালু হবে। স্থানীয়রা তো বটেই, জেলার যে কোনও স্কুল-কলেজের ছাত্রীরাই এই কোর্সে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে মার্শাল আর্টের ট্রেনিং করতে পারবেন। উত্তর ২৪ পরগনা এসএফআইয়ের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য এবং অশোকনগরের নেতা আকাশ কর জানান, তাঁদের এলাকায় ১৭ টি মেয়েদের এবং কো-এড স্কুল রয়েছে। এই সমস্ত স্কুল এবং দুটি কলেজে তাঁরা চিঠি পাঠাতে শুরু করেছেন এসএফআইয়ের পক্ষ থেকে। যে কোনও ছাত্রী বিনামূল্যে এই মার্শাল আর্ট শেখার ক্যাম্পে অংশ নিতে পারেন। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার এসএফআইয়ের সম্পাদক রানা রায় জানান, রাজ্যজুড়ে মহিলারা আক্রান্ত। মহিলারা যাতে নিজেরাই নিজেদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে পারেন সেই কারণেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
সম্প্রতি কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকেও মহিলাদের সেলফ ডিফেন্স ট্রেনিংয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু রাজ্য সরকার এবং প্রশাসনের সমালোচনা মধ্যে দিয়ে মহিলাদের সেলফ ডিফেন্স ট্রেনিংয়ের ইস্যুকে রাজনৈতিক হাতিয়ার করে প্রচার কর্মসূচি যথেষ্টই সাড়া ফেলেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার এসএফআইয়ের অন্দরে। এসএফআইয়ের প্রাক্তন নেতা সপ্তর্ষি দেব জানান, রাজ্যজুড়ে কলেজগুলোর যে অবস্থা তাতে সেখানে ছাত্র রাজনীতির বিশেষ অবস্থা নেই। তাই মানুষের দৈনন্দিন নানা সমস্যাকে ইস্যু করে অভিনব বিভিন্ন প্রচার কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। তাতে সাড়াও পাওয়া যাচ্ছে ভালো।

Comments
Loading...