রেড, অরেঞ্জ জোনের ম্যাপ প্রকাশ রাজ্যের, দেখে নিন আপনি যেখানে থাকেন তা সংক্রমিত এলাকা কিনা

প্রধানমন্ত্রীর বডি ল্যাঙ্গোয়েজ দেখে মনে হয়েছে, লকডাউন আরও দীর্ঘায়িত হতে পারে। সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা করতে হবে। রাজ্যের সমস্ত জেলাকে সংক্রমণের হার অনুযায়ী লাল, কমলা ও সবুজ এই তিনভাগে ভেঙে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মানুষের কাছে সেই তালিকা দিয়ে দেওয়া হবে। যাতে তাঁরা বুঝতে পারেন, কখন বাড়িতে থাকতে হবে আর কখন বেরোনো যেতে পারে। নবান্নে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্য সরকারের তরফে রেড ও অরেঞ্জ কনটেইনমেন্ট এলাকার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

কলকাতা

সেই তালিকা অনুযায়ী, কলকাতা পুর এলাকায় রয়েছে কর্পোরেশনের ১, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৯, ১০ নম্বর ওয়ার্ডের কিছু এলাকা থেকে শুরু করে ১০৮, ১০৯, ১১৫, ১৩৫, ১৩৬, ১৩৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা সহ মোট ২২৭ টি কনটেইনমেন্ট এলাকা। কলকাতা পুর এলাকার সম্পূর্ণ তালিকার জন্য ক্লিক করুন Kolkata

 

হাওড়া

হাওড়া পুর এলাকার মধ্যে ৩, ৪, ৫, ৬, ১০, ১২, ১৫, ১৯, ২০, ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা। এছাড়াও আছে উলুবেড়িয়া পুরসভার ১ টি ওয়ার্ডের কিছু এলাকা এবং গ্রামীণ হাওড়ার এলাকা। হাওড়ার সম্পূর্ণ তালিকার জন্য ক্লিক করুন Howrah

 

পূর্ব মেদিনীপুর

পূর্ব মেদিনীপুরে মোট ৮ টি এলাকাকে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে রাজ্য সরকার। তার মধ্যে রয়েছে এগরা, হলদিয়া পুরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের অংশ এবং অন্যান্য এলাকা। পূর্ব মেদিনীপুরের সম্পূর্ণ তালিকার জন্য ক্লিক করুন Purba Medinipur

 

উত্তর ২৪ পরগনা

উত্তর ২৪ পরগনায় ৫৭ টি কনটেইনমেন্ট জোন চিহ্নিত করেছে রাজ্য। তার মধ্যে যেমন রয়েছে উত্তর ও দক্ষিণ দমদম পুরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের কিছু এলাকা আবার তেমনই রয়েছে ভাটপাড়া, খড়দা, পানিহাটি, বারাকপুর, বারাসাত ও বিধাননগর পুর কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের একাধিক এলাকা। উত্তর ২৪ পরগনার কনটেইনমেন্ট জোনের সম্পূর্ণ তালিকা জানতে ক্লিক করুন North 24 Prgs.

 

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, লকডাউন কবে উঠবে সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্র। কিন্তু লকডাউন শুরুর ৪৯ তম দিন অর্থাৎ ২১ মে পর্যন্ত অত্যন্ত সাবধানে থাকতেই হবে। তবে গ্রিন জোনের স্বাভাবিকতা ফেরানোর প্রয়াস চলতে পারে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, কিন্তু খেয়াল রাখবেন গ্রিন জোন অরেঞ্জ কিংবা রেড জোনে বদলে গেলে কিন্তু আবার লকডাউন করতে হবে। মমতা বলেন, কোথায় কতটা ছাড় দেওয়া যায় অথবা কোথায় ছাড় বন্ধ করতে হবে, তা দেখে নিয়েই পদক্ষেপ হবে।

রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এবার একটি মন্ত্রীগোষ্ঠী গড়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাতে থাকছেন, রাজ্যের ৩ মন্ত্রী অমিত মিত্র, ফিরহাদ হাকিম এবং চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। সেই সঙ্গে ক্যাবিনেট কমিটি অন কোভিড ম্যানেজমেন্টে থাকবেন মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব এবং স্বাস্থ্য সচিব।

এদিন পাশাপাশি নন এসেনশিয়াল গুডসের হোম ডেলিভারিতেও ছাড় দিয়েছে রাজ্য সরকার। কোটা থেকে বাংলার পড়ুয়াদের ফেরানোর ব্যাপারে রাজস্থান সরকারের সঙ্গে কথা হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন মমতা। তাঁর কথায়, রাজস্থান সরকারকে বলেছি ওঁদের ভালো করে পরীক্ষা করে বাস ভাড়া করে বাংলায় পাঠিয়ে দিতে। আমরা সমস্ত খরচ দিয়ে দেবো। পাশাপাশি বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকদেরও ক্ষেত্রেও কোনও রাজ্য সরকার পরীক্ষার পর বাস ভাড়া করে পাঠালে রাজ্য সেই খরচ দিয়ে দেবে বলে জানিয়েছেন মমতা।

Comments
Loading...