সাংবাদিক থেকে মাস্টার শেফ: হাজার শিশুর মুখে মুখরোচক খাবার তুলে দিচ্ছেন ইউটিউব স্টার খাজা মইনুদ্দিন

সাংবাদিক থেকে রাঁধুনি। প্রতি মাসে প্রায় ১,২০০ অনাথ ও পথশিশুর মুখে খাবার তুলে দিয়ে নিজের মতো করে জনসেবা করে চলেছেন হায়দরাবাদের ইউটিউব সেনসেশন খাজা মইনুদ্দিন।
মইনুদ্দিনের ইউটিউব চ্যানেল, নবাব’স কিচেনের সাবস্ক্রাইবার এখন ১০ লক্ষ ছাড়িয়েছে। নিত্য নতুন উপাদেয় ডিশ তৈরি তো আছেই, কিন্তু নবাব’স কিচেনের ইউটিউব চ্যানেলের আকর্ষণ অন্য জায়গায়। তাঁর রান্নার অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হন হাজারেরও বেশি অনাথ ও পথশিশু। প্রতিমাসে এক হাজারের বেশি গরিব ও অনাথ শিশুকে নিজের তৈরি মুখরোচক খাবার খাইয়ে তৃপ্তি পান এই প্রাক্তন সাংবাদিক।
এক তেলেগু নিউজ চ্যানেলের সফল সাংবাদিক ছিলেন হায়দরাবাদের খাজা মইনুদ্দিন। তাঁর সঞ্চালনায় দুর্দান্ত জনপ্রিয় হয়েছিল তেলেঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশের রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ে অনুষ্ঠান। কিন্তু এই কাজে মন ভরছিল না খাজার। বরাবরই চেয়েছেন অন্যরকম কিছু করতে।
রান্না তাঁর অন্যতম শখ। নতুন নতুন পদ রাঁধতেও ভালোবাসেন। ছুটির দিনে মইনুদ্দিনের সন্তানরা বাইরে নয়, বাবার হাতের তৈরি পদ চাখতেই বেশি পছন্দ করে। এই শখকে কাজে লাগিয়ে ২০১৭ সালে একটি ইউটিউব চ্যানেল খোলেন মইনুদ্দিন। ‘নবাব’স কিচেন’ নামে এই ইউটিউব চ্যানেল খোলার দিন থেকে মইনুদ্দিনের সঙ্গী ছিলেন তাঁর ২ বন্ধু, শ্রীনাথ ও ভগৎ। তিনি যে পদই রান্না করুন না কেন তা হতো বিপুল পরিমাণে, লক্ষ্য ছিল পথশিশু ও অনাথদের দিয়ে সব ডিশ টেস্ট করানো।
কিন্তু শখ পূরণ হলেও, রোজগার তেমন হচ্ছিল না। যে টিভি চ্যানেলের হয়ে মইনুদ্দিন সাংবাদিকতা করতেন, সেখান থেকে একদিন জানিয়ে দেওয়া হল, দুটো কাজ একসঙ্গে চলবে না। সেদিনই সাংবাদিকতায় ইতি। এদিকে ইউটিউবে সাবস্ক্রাইবার বাড়লেও, খাবার তৈরির খরচ জুগিয়ে হাতে তেমন কিছু থাকত না মইনুদ্দিনদের। সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন, আর একটা ভিডিও আপলোড করেই চ্যানেল বন্ধ করবেন। সেই ভিডিওতে জানিয়েও দেন, কেন এটাই তাঁদের শেষ ভিডিও।
এবার অবাক হওয়ার পালা মইনুদ্দিনের। সেদিনের এপিসোড আপলোড হবার পর একটার পর একটা ই-মেল আসতে শুরু করে তাঁর কাছে। প্রত্যেকের অনুরোধ, তাঁরা আর্থিক সাহায্য করবেন, কিন্তু এমন অনুষ্ঠান যেন কিছুতেই বন্ধ না হয়। তাঁদের স্পনসরশিপেই শুরু হয় নবাবস কিচেনের দ্বিতীয় ইনিংস। মইনুদ্দিনের সব রেসিপি দারুণ হিট হলেও, তাঁর তৈরি কেকের ফ্যান বেস আলাদা। যদিও এবার আর কেক নয়, মইনুদ্দিনের পরের রেসিপি নুডলসের বিশেষ পদ। কচিকাঁচাদের আবদার, তারা কখনও নুডলস খায়নি। সেই আবদার মেনে প্রাক্তন সাংবাদিক আর বর্তমান শেফ মইনুদ্দিন তৈরি হচ্ছেন নুডলসের স্পেশাল পদ রাঁধতে।

Comments
Loading...