কেরালার শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদেরও প্রবেশাধিকার থাকা উচিত, জানাল সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চ।

‘ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা জানানোর অধিকার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবারই আছে। তাই কেরলের শবরীমালা মন্দিরে নারীদেরও প্রবেশাধিকার থাকা উচিত’। বুধবার এই কথা জানাল দেশের শীর্ষ আদালত। এই দিন সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি আর এফ নরিম্যান, এ এম খানউইলকর, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় এবং ইন্দু মালহোত্রার বেঞ্চ এক শুনানির পরিপ্রেক্ষিতে এই কথা জানায়। উল্লেখ্য, কেরালার ভগবান আয়াপ্পার শবরীমালা মন্দিরে ঋতুমতী মহিলাদের (১০ থেকে ৫০ বছর) প্রবেশাধিকার নেই। এই দিন বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন ‘শুধুমাত্র মহিলা, এই যুক্তি দেখিয়ে কারও প্রবেশাধিকার বন্ধ করা যায় না’। দীর্ঘদিন ধরে এই মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকারের দাবি জানিয়ে বহু পিটিশন দাখিল হয়েছে শীর্ষ আদালতে। ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে সুপ্রিমকোর্ট এই মামলাটি সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠায়। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রসহ চার বিচারপতির বেঞ্চ প্রশ্ন তোলে, কেন শবরীমালা মন্দিরে মহিলারা প্রবেশাধিকার পাবেন না? কেরালার এক মন্ত্রী কে সুরেন্দ্রন জানান, তাঁরাও চান শবরীমালা মন্দিরে মহিলারা প্রবেশাধিকার পান। কেরালা সরকার এই মর্মে দেশের শীর্ষ আদালতের কাছে হলফনামা জমা দেবেন। এরপরের সিদ্ধান্ত নির্ভর করবে সুপ্রিমকোর্টের চূড়ান্ত রায়ের ওপর।

Comments
Loading...