TRP Scam: সাসপেন্ড হোক রিপাবলিক টিভি, আবেদন NBA’র, JPC গড়ে তদন্তের দাবি বিরোধীদের

রিপাবলিক টিভি কর্ণাধারের ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ঘিরে বিতর্ক অব্যাহত

রিপাবলিক টিভির কর্ণধার তথা সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামী ও BARC-এর প্রাক্তন কর্তা পার্থ দাশগুপ্তর ভাইরাল হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ঘিরে বিতর্ক অব্যাহত। অর্ণবের চ্যাটে বালাকোট এয়ার স্টাইক নিয়ে তাঁর মন্তব্যের প্রেক্ষিতে জয়েন্ট পার্লামেন্টারি কমিটি গঠন করে তদন্তের দাবি জানাল বিরোধীরা। অন্যদিকে, অর্ণবের রিপাবলিক টিভিকে সাসপেন্ডের দাবি জানিয়ে ইন্ডিয়ান ব্রডকাস্টিং ফাউন্ডেশন (IBF)-এর কাছে আবেদন জানিয়েছে নিউজ ব্রডকাস্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (NBA)।

TRP জালিয়াতি মামলায় অভিযুক্ত BARC’র প্রাক্তন কর্তা পার্থ দাশগুপ্তর বিরুদ্ধে আদালতে একটি ৩ হাজার ৬০০ পাতার অতিরিক্ত চার্জশিট পেশ করেছে মুম্বই পুলিশ। জানা গিয়েছে, ওই চার্জশিটের পঞ্চাশ পাতা জুড়ে রয়েছে অর্নব ও পার্থর এই হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথনের স্ক্রিনশট। তাতে অর্নব গোস্বামী ২০১৯ সালে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের তিনদিন আগেই পার্থকে কে জানিয়ে দেন, ”something big will happen,” “bigger than a normal strike.” তাঁদের এই কথোপকথনের ঠিক তিন দিন পরই ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করে ভারতীয় বায়ুসেন। দেশের প্রতিরক্ষা বিষয় অত্যন্ত গোপনীয় নথি কীভাবে সাংবাদিকের কাছে চলে যায় তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা। তাদের দাবি, জয়েন্ট পার্লামেন্টারি কমিটি গঠন করে এই বিষয়ে তদন্ত করতে হবে। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালার প্রশ্ন, জাতীয় নিরাপত্তার পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ এই সব তথ্য এক জন টিভি অ্যাঙ্করের কাছে পৌঁছয় কী ভাবে, যা তিনি নিজের টিভিকে জনপ্রিয় করতে ব্যবহার করেন?

মোদী সরকারকে নিশানা করে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম এক ট্যুইটে লেখেন, একজন সাংবাদিক কি আগেভাগেই এয়ারস্ট্রাইকের মতো গোপনীয় বিষয় সম্পর্কে জানতে পারেন? এর উত্তর যদি হ্যাঁ হয়, তাহলে এর কি নিশ্চয়তা আছে যে এই এয়ার স্ট্রাইক এর খবর পাকিস্তানের এজেন্টের কাছেও নেই? তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করে ট্যুইটারে লেখেন, সরকার কীভাবে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক ও ৩৭০ ধারা রদের মতো অতি সংবেদনশীল তথ্য অর্নব গোস্বামীকে দিয়েছিল তা জানতে চায় জাতি। এরপর তাঁর কটাক্ষ, আমিই কি একমাত্র যে মনে করে এইসব প্রশ্নের উত্তর দিতে বাধ্য শাহ-মোদী?

এদিকে NBA’র অভিযোগ, অর্ণব গোস্বামী ও পার্থ দাশগুপ্তের ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটই বুঝিয়ে দেয় টিআরপি রেটিংয়ে কারচুপি করার ক্ষেত্রে কীভাবে দু’পক্ষের মধ্যে অশুভ আঁতাঁত গড়ে উঠেছিল। এটা শুধু রেটিংয়ে কারচুপি নয়, ক্ষমতার খেলাও বটে। তাই NBA’র দাবি, TRP কারচুপি মামলা আদালতে নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত রিপাবলিক টিভির সদস্যপদ সাসপেন্ড করুক ইন্ডিয়ান ব্রডকাস্টিং ফাউন্ডেশন (IBF)। রিপাবলিক টিভির TRP কারচুপিতে ব্রডকাস্ট ইন্ডাস্ট্রির ভাবমূর্তি যেভাবে খারাপ হয়েছে, তাতে আদালতের রায় না আসা পর্যন্ত এই টিভি চ্যানেলকে BARC-এর রেটিংয়ের বাইরে রাখারও আবেদন জানিয়েছে তারা।

Comments
Loading...