শঠতার সমস্ত সীমা অতিক্রম করেছে আইটি সেল! বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর বিস্ফোরক বয়ান

শঠতার সমস্ত সীমা অতিক্রম করে গিয়েছে বিজেপি আইটি সেল, চাঞ্চল্যকর অভিযোগ বিজেপি নেতা তথা রাজ্যসভা সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর।

সোমবার ট্যুইটে বিজেপি আইটি সেলের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দিয়ে স্বামীর অভিযোগ, বিজেপি আইটি সেলের সদস্যরা ফেক আইডি তৈরি করে তাঁকেই আক্রমণ করছে। তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল, বিজেপি সাংসদ খোদ নিজের দলেরই আইটি সেলের বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগ আনলেন যখন কেন্দ্রের শাসক দল ও ফেসবুকের গোপন আঁতাতের অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

ঠিক কী অভিযোগ করেছেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী?

সোমবার ট্যুইটে স্বামী লেখেন, বিজেপি আইটি সেল শঠতার সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে। এদের কেউ কেউ ফেক আইডি তৈরি করে আমাকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করছে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরও লেখেন, যদি আমার অনুগামীরা রাগের বশে পালটা ব্যক্তিগত আক্রমণ শুরু করে তার জন্য আমি যেমন দায়ী থাকব না, তেমনই বিজেপির এই শঠ আইটি সেলের জন্য বিজেপি দায়ী থাকবে না।

এখানেই থামেননি বিজেপি সাংসদ। অন্য এক ট্যুইটে স্বামী লেখেন, বিজেপির উচিত আইটি সেলের এইসব কর্মীদের বরখাস্ত করা। আমি এইসব অগ্রাহ্য করতেই পারি, কিন্তু বিজেপির অবশ্যই উচিত এদের বরখাস্ত করা। স্বামী লেখেন, আমরা মর্যাদা পুরুষোত্তমের দল, কোনও রাবণ বা দুঃশাসনের দল নই।

ঘুরিয়ে বিজেপি আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্যকেও একহাত নিয়েছেন স্বামী। যদিও বিজেপি সাংসদের এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে কোনও প্রতিক্রিয়া আসেনি মালব্যের তরফে।

বিজেপি সাংসদ স্বামী বিভিন্ন সময়ে মোদী সরকারের সমালোচনা করেন। কেন্দ্রের জিএসটি নীতি থেকে গত কয়েকদিন ধরে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা নিয়ে বিজেপি সরকারের অবস্থানের বিরোধিতা করছিলেন স্বামী। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের মতামত রেখেছিলেন ভারতের খারাপ অর্থনীতি, কোভিড জনিত ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি নিয়ে। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে তিনি জালিয়ানওলাবাগের ঘটনার সঙ্গেও তুলনা করেছিলেন। এই প্রেক্ষিতে তাঁকে আক্রমণ করে প্রচুর ট্যুইট করা হয়। আক্রমণকারীরা বিজেপি আইটি সেলেরই সদস্য বলে গুরুতর অভিযোগ করলেন প্রবীণ বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী।

বিজেপির অন্দরের মত অবশ্য ভিন্ন। তাঁদের একাংশের দাবি, স্বামী নিজেকে দেশের অর্থমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান। কিন্তু প্রথমে অরুণ জেটলি এবং তারপর নির্মলা সীতারমন সেই ইচ্ছেপূরণের পথে দেওয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছেন। স্বামী একটা সময় প্রকাশ্যে জেটলির সমালোচনা করে বলেছিলেন, ও আবার অর্থনীতির কী জানে? বিজেপির অন্দরে গুঞ্জন, একদিকে জেটলির সমালোচনা, অন্যদিকে সঙ্ঘের হিন্দি-হিন্দু-হিন্দুস্থান মন্ত্রের সমর্থনে সওয়াল করে একটা ব্যালেন্স বজায় রাখার চেষ্টা করেন স্বামী। কিন্তু আইটি সেলের ধারাবাহিক সমালোচনা-ট্রোলিংয়ের মুখে এবার ধৈর্য হারাচ্ছেন, বলে মনে করছেন তাঁরা।

Comments
Loading...