মমতা ব্যানার্জি: সেন্ট্রাল এজেন্সি দিয়ে আইএস-আইপিএস অফিসারদের ভয় দেখানো হচ্ছে, মহামারি আইন ভাঙছে বিজেপি

ইচ্ছাকৃতভাবে বাংলায় মহামারি আইন ভাঙছে একটি রাজনৈতিক দল। করোনা পরিস্থিতিতে মহামারি আইন না মেনে মিটিং মিছিল করার জন্য নাম না করে বিজেপিকে দুষলেন মুখ্য মন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। জানালেন, কোনওভাবেই কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যকে সহযোগিতা করছে না।

বৃহস্পতিবার নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠকের শুরুতেই কেন্দ্রকেও খোঁচা দেন মমতা। সুষ্ঠুভাবে দুর্গাপুজো করার জন্য ক্লাব, পুজো কমিটি এবং পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান। কিন্তু বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁর অভিযোগ, কেউ কেউ ইচ্ছা করে শোভাযাত্রা করছে। তাদের জন্যই রাজ্যে করোনা সংক্রমণের গ্রাফও ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছে বলেই অভিযোগ তাঁর। এছাড়াও মমতার অভিযোগ, রাজ্য কেন্দ্র সরকারের ক্ষমতায় হস্তক্ষেপ না করলেও, কেন্দ্র সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে রাজ্যের ক্ষমতায় হস্তক্ষেপ করছে। রাজ্যের পুলিশ অফিসারদের হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। মমতার অভিযোগ, ইচ্ছাকৃতভাবে পুলিশদের ভয় দেখানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় এজেন্সি দিয়ে রাজ্যের আইএএস এবং আইপিএস আধিকারিকদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের জব্দ করতে তাঁদের স্ত্রীদের পরিকল্পনামাফিক অনেক দূরে বদলি করে দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। যদিও এতে ভয় না পেয়ে মাথা উঁচু করে কাজ করার কথাও বলেন মুখ্য মন্ত্রী। জেলাশাসক এবং বিডিওদের নিজের কাজের প্রতি আরও দায়িত্ববান হওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন মুখ্য মন্ত্রী।

পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের বাংলা সফরের দিনে বিভিন্ন জেলায় সিআরপিএফ দিয়ে রেইড করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মমতা। বলেন, রাজ্যের পুলিশকে কোনওকিছু না জানিয়ে এই অভিযান চলছে। মমতার কটাক্ষ, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এক জায়গায় নেমন্তন্ন খেতে গেলেন, অন্য জায়গায় রেইড করতে পাঠানো হল কেন্দ্রীয় বাহিনীকে। কী প্ল্যানিং! ট্রাম্পের মতো প্ল্যানিং, অবশ্য ট্রাম্প এবার হারছেন…।” অমিত শাহের সফরকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, হঠাৎ যেন মিটিং মিছিল করার প্রবণতা বেড়ে গিয়েছে। ভোট তো এখন অনেক দেরি! প্যানডেমিক আইন না মানলে সংক্রমণ বেড়ে যাবে। তাই সবার কাছে আমার আবেদন এভাবে ‘মিক্স আপ’ করবেন না।

 

Comments
Loading...