‘জয় শ্রীরাম’ নিয়ে মুখে খোলায় অমর্ত্য সেনকে বেনজির কটাক্ষ রাজ্যপাল তথাগত রায়ের, আক্রমণে বিজেপি নেতারাও

‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানের সঙ্গে বঙ্গ সংস্কৃতির যোগ বোঝাতে নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকে বেনজির আক্রমণ তথাগত রায়ের। অমর্ত্য সেনকে দেশে না থাকার জন্য খোঁচাও দিলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। অবশ্য শুধু প্রাক্তন বিজেপি নেতা এবং বর্তমান রাজ্যপাল তথাগত রায়ই নন, অমর্ত্য সেনকে আক্রমণ করতে মাঠে নেমেছেন বিজেপির বঙ্গ ব্রিগেডের নেতারাও। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে শুরু করে সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় নিশানা করেছেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদকে। যদিও তাতে নতুনত্ব কিছু নেই, কিন্তু খোদ রাজ্যপালের তাতে শামিল হওয়া যথেষ্টই নজিরবিহীন।
অমর্ত্য সেনকে আক্রমণের মধ্যে দিয়ে ফের ফেসবুকে বিতর্কিত পোস্ট করলেন তথাগত রায়। কেন্দ্রীয় সরকারের হিন্দি ভাষা শিক্ষা বাধ্যতামূলক করার ইস্যুতে ট্যুইট করে বলেছিলেন, বাঙালি মেয়েরা মুম্বইয়ে বার ডান্স করে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তোলা ‘জয় বাংলা’ স্লোগানকে ‘ইচ্ছাকৃত দেশদ্রোহিতা’ এবং ‘ছদ্ম উপ-জাতীয়তাবাদ’ বলে উল্লেখ করে বেনজির আক্রমণ করেছিলেন তথাগত রায়। সম্প্রতি রাজ্যে নাম বদল না হওয়ার জন্যও নিজের কৃতিত্ব দাবি করেন তিনি। ফেসবুকে লেখেন, তিনিই রাজনাথ সিংহকে বলেছিলেন রাজ্যের নাম বদল না করতে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে বারবার অভিযোগ করা হয়েছে, সাংবিধানিক পদে থেকে এক্তিয়ারের বাইরে কথা বলছেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। ওসবের অবশ্য তোয়াক্কা করেননি তথাগত রায়। এবার তথাগতের আক্রমণ নোবেল জয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকে।

গত শুক্রবার ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান নিয়ে বিজেপিকে বিঁধেছিলেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ। অমর্ত্য সেনের কথায়, ‘মানুষকে প্রহার করার জন্য এখন এ সব কথা বলা হচ্ছে। বাংলায় ইদানীংকালে এই সব আমদানি হয়েছে। বাংলার সংস্কৃতিতে কোনও সময়েই এই ধরনের স্লোগানের কোনও জায়গা ছিল না।’ অমর্ত্য সেনের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বিজেপির বিভিন্ন নেতাই বেনজির আক্রমণ করেছেন তাঁকে। এবার এই তালিকায় শামিল হলেন রাজ্যপাল তথাগত রায়ও। শনিবার ট্যুইটার ও ফেসবুক পোস্টে তথাগত রায় লেখেন, ‘অমর্ত্য সেন বেশিরভাগ সময় বিদেশে থাকলে আর জয় শ্রীরাম কোথা থেকে শুনবেন। বিশ্ববরেণ্য অর্থনীতিবদকে খোঁচা দিয়ে তিনি লেখেন, ‘শ্রীরামপুরের নাম শোনেননি অমর্ত্যবাবু? কিংবা রামরাজাতলা?’
শুক্রবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে অমর্ত্য সেন বলেছিলেন, বিভিন্ন জাত, ধর্ম বা গোষ্ঠীর মধ্যে পার্থক্য করার প্রয়াস বেড়েছে ইদানীংকালে। জয় শ্রীরাম বা রাম নবমী, এ সবের সঙ্গে বাঙালির কোনও যোগ নেই বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এই প্রেক্ষিতে অমর্ত্য সেনকে আক্রমণ করে ‘রামরাজাতলা’ বা ‘শ্রীরামপুর’ এলাকার নাম তুলে বাংলার সঙ্গে রামের যোগসূত্র স্থাপন করতে চাইলেন তথাগত রায়।
বরাবরই বিজেপির রাজনীতির কড়া সমালোচনা করে এসেছেন অমর্ত্য সেন। যার জেরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে কেন্দ্রীয় স্তরের বিজেপি নেতাদের আক্রমণের মুখে পড়েছেন তিনি। অমর্ত্য সেনের শুক্রবারের মন্তব্যের পরে তাঁকে ফের নিশানা করেন দিলীপ ঘোষ, সায়ন্তন বসু, বাবুল সুপ্রিয় সহ একাধিক বিজেপি নেতা। বিশ্ববরেণ্য অর্থনীতিবিদকে আক্রমণ করে এক ফেসবুক পোস্টে বিজেপি কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় লেখেন, ‘তাঁর বয়স কথা বলছে মস্তিষ্ক নয়। সেই কারণেই উনি শ্রীরামের মানে বুঝতে পারছেন না’।

এবার অমর্ত্য সেনকে নিশানা করে কটাক্ষ করতে রাজ্যের বিজেপি নেতাদের সঙ্গে তাল মেলালেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়ও।

Comments
Loading...