শিলিগুড়িতে মৃত বিজেপি কর্মী বন্দুক নিয়ে আন্দোলনে এসেছিলেন, দাবি তৃণমূলের

উত্তরকন্যা অভিযানে মৃত বিজেপি কর্মী সঙ্গে করে শটগান এনেছিলেন।সাংবাদিক বৈঠকে পুলিশের রিপোর্ট তুলে ধরে দাবি করলেন তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। 

মঙ্গলবার সুব্রতবাবু জানান, সরকার থেকে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে উলেন রায় নামে বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করতে বলা হয় পুলিশকে। পুলিশের রিপোর্টে উঠে এসেছে মিছিলে একাধিক বিজেপি কর্মী শটগান নিয়ে হাজির হয়েছিলেন। এমনকী মৃত উলেন রায়ের কাছেও শটগান ছিল বলে দাবি সুব্রত মুখার্জির। তিনি বলেন, পুলিশের দিকে শটগান দিয়ে গুলি ছুঁড়ে প্ররোচনা দেওয়ার ‘উদ্ভট আয়োজন’ হয়েছিল। সেখানে কোনওভাবে নিজেদের গুলিতে নিহত হন ওই বিজেপি কর্মী। 

সোমবার গোটা ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে সুব্রত বলেন, যে সংযম পুলিশ দেখিয়েছে তাতে সরকার খুশি। তিনি হানান, এই ঘটনার তদন্তভার নিয়েছে সিআইডি। পাশাপাশি দক্ষিণপন্থী দল হয়ে খুনের রাজনীতি শুরু করেছে বিজেপি বলে অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতা দখল করার লোভে পাগল হয়ে গিয়েছে বিজেপি। তাই এখন মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করতে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, খুনের রাজনীতি করত বামেরা। কোনও দক্ষিণপন্থী দল এরকম করে না। কিন্তু এখন বিজেপি এই ধরনের রাজনীতি করছে। পাশাপাশি, সুব্রতবাবুর আরও দাবি, মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গে যে ধর্মঘট ডেকেছে বিজেপি, তাতেও যদি কোনও ‘দুর্ঘটনা’ হয় তিনি অবাক হবেন না। 

পাশাপাশি এদিনও বিজেপিকে বহিরাগত বলে আক্রমণ করে তৃণমূল। সুব্রতবাবুর কটাক্ষ, অন্য রাজ্য তো বটেই, ভিন গ্রহ থেকেও নেতা আনতে পারে বিজেপি! তবে ‘ভূমিপুত্র’ এর রাজনৈতিক মান সর্বদা বেশি। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার সফর প্রসঙ্গে সুব্রত মুখার্জির খোঁচা, ‘ফরেনার দিয়ে রাজনীতি আগে দেখিনি।’

Comments
Loading...