তৃণমূল: কেউ এত বীর নয় যে ছেড়ে দিলেই পার্টি উঠে যাবে, বিধায়ক করা আমাদের বিষয়, ছাড়াটা ওঁদের

শনিবার অমিত শাহের রাজ্য সফরের আগে বিধায়ক ও তৃণমূলের সদস্য পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দলের সঙ্গে তাঁর শেষ সম্পর্ক চুকিয়ে দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এখন শুভেন্দুর সঙ্গে তৃণমূলের আরও কতজন নেতা, বিধায়কের বিজেপিতে যোগ দেবেন তাই নিয়ে তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। যদিও এই বিষয়টিকে তাঁরা বিশেষ পাত্তা দিচ্ছেন না বলেই দাবি করলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। এদিন তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক থেকে তাঁর কটাক্ষ, ‘বিধায়ক করা আমাদের বিষয়, ছেড়ে যাওয়া তাঁর বিষয় এবং পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা অধ্যক্ষের বিষয়।’ কয়েকজন বিধায়ক ও নেতার দলবদলে তৃণমূলের উপর কোনও প্রভাব পড়বে না বলে দাবি করেন তিনি।
কিন্তু শুভেন্দুর হাত ধরে আরও কেউ কি দল ছাড়তে চলেছেন? সুব্রতবাবুর প্রতিক্রিয়া, সংবাদমাধ্যমের কাছে এটা বড় বিষয়। তৃণমূলের কাছে এটা কোনও ইস্যুই নয়। তাঁর কথায়, কেউ এত বড় বীর নয় যে, সে চলে গেলে পার্টিটাই উঠে যাবে। পাশাপাশি ভোটের আগে রাজ্যের উপর অসাংবিধানিক ভাবে চাপ বৃদ্ধি করা হচ্ছে বলে বিজেপিকে নিশানা করে তৃণমূল। জানানো হয়, বিজেপির কাছে কোনওভাবে মাথা নত করবে না মমতার দল, রাষ্ট্রপতি শাসনকেও স্বাগত।
বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডার কনভয়ে হামলার প্রেক্ষিতে তীব্র সংঘাতের পথে গিয়েছে রাজ্য ও কেন্দ্র। রাজীব মিশ্র, প্রবীণ ত্রিপাঠি এবং ভোলানাথ পাণ্ডে নামে ওই তিন অফিসারকে কেন্দ্রীয় ডেপুটেশনে যাওয়ার নির্দেশের পরে তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তাঁর দলের তরফেও কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের সমালোচনা করা হয়। তৃণমূলের অভিযোগ, রাজ্য বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্য পুলিশের মনোবল ভেঙে দিতে চাইছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। সংবিধানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রাজ্যের তিন আইপিএস অফিসারকে ভিন রাজ্যে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতি পদে রাজ্যের উপর কেন্দ্রের এই হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা যায় না বলে এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মন্তব্য করেন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক বৈঠক থেকে তাঁর হুঁশিয়ারি,’ওয়েলকাম করছি রাষ্ট্রপতি শাসন। হিম্মত থাকলে করে দেখাক বিজেপি।’
প্রসঙ্গত, এ রাজ্যে আইনের শাসন নেই বলে বারবার বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব রাষ্ট্রপতি শাসন জারির হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন। এদিকে মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের শাসক দলের প্রধান মমতা ব্যানার্জিও পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেছেন, রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হলে আখেরে তাঁরই ভালো। এবার তিন আইপিএস অফিসারকে রাজ্যের বাইরে বদলির নির্দেশে প্রেক্ষিতে ফের রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়ে বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ করল তৃণমূল।

Comments
Loading...