রিপাবলিক টিভিকে তীব্র আক্রমণ তৃণমূলের, আমাদের প্রতিনিধি সাজিয়ে যাঁকে বক্তা করা হয়েছে তিনি তৃণমূলের কেউ নন!

করোনাভাইরাস নিয়ে সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানের পরিপ্রেক্ষিতে নিউজ চ্যানেল রিপাবলিক টিভিকে তীব্র আক্রমণ তৃণমূলের। অভিযোগ, করোনাভাইরাস নিয়ে টিভি শোয়ে তৃণমূলের প্রতিনিধি ‘সাজিয়ে’ যে ব্যক্তিকে বক্তা হিসেবে ডাকা হয়েছিল, তাঁর সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই। রাজ্যের শাসক দলের তরফে জানানো হয়েছে, যেভাবে একজনের ব্যক্তিগত অসুস্থ ধারণাকে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় মত হিসেবে দেখানো হয়েছে তা দুর্ভাগ্যজনক। আমরা এই ধরনের মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করছি।
এই ভাষাতেই তৃণমূল নিশানা করল নিউজ চ্যানেল রিপাবলিক টিভিকে। গোলমালের সূত্রপাত ওই নিউজ চ্যানেলের একটি আলোচনাসভা থেকে। সেখানে এক ব্যক্তিকে তৃণমূলের সমর্থক হিসেবে দেখানো হয়। রাজ্যের শাসক দলের অভিযোগ, সেই ব্যক্তি দলীয় মত হিসেবে যে মন্তব্য পেশ করেছেন, তার সঙ্গে তৃণমূলের নীতির কোনও সম্পর্কই নেই। বাংলায় অন্যান্য প্রদেশের মানুষের থাকা নিয়েও ওই ব্যক্তি আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। দলের তরফে করা ট্যুইটে বলা হয়েছে, আপত্তিকর ব্যক্তিগত মতামতকে দলীয় মত বলে চালানো হচ্ছে, এটা দূর্ভাগ্যজনক। আমরা ওই মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করছি। মারওয়াড়িদের কাছে বাংলা দ্বিতীয় বাড়ি। তৃণমূল কংগ্রেস বিশ্বাস করে, সব সংস্কৃতিকে আপন করে নিয়েই এগিয়ে যাবে বাংলার সংস্কৃতি। যেখানে সব মানুষেরই সমান অধিকার।

একধাপ এগিয়ে সংশ্লিষ্ট নিউজ চ্যানেলদের দিকে তীব্র কটাক্ষ ছুঁড়ে দিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। একটি ট্যুইটে কৃষ্ণনগরের সাংসদ লেখেন, গত রাতে রিপাবলিক টিভির অনুষ্ঠানে বাংলা থেকে যে অতিথি অংশ নিয়েছিলেন, তাঁর অসুস্থ ভাষায় আপত্তিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করছি। তৃণমূল রিপাবলিক টিভিতে প্রতিনিধি পাঠায় না। অনৈতিকভাবে টিভি চ্যানেলটি যাকে-তাকে তৃণমূলের প্রতিনিধি হিসেবে পরিচয় করাচ্ছে, এবং এতে দর্শকরা বিভ্রান্ত হচ্ছেন।

সংশ্লিষ্ট চ্যানেলের বিরুদ্ধে বিজেপির প্রতি পক্ষপাতমূলক আচরণের অভিযোগ উঠেছে বারবার। এমনকী জাতীয় বিপর্যয়ের সময়ও টিভির পর্দায় সংকীর্ণ রাজনীতি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ। এই প্রেক্ষিতে বিতর্কিত অ্যাঙ্কর অর্ণব গোস্বামীর নিউজ চ্যানেলের বিরুদ্ধে সুর চড়াল তৃণমূল।

Comments
Loading...