জঙ্গি নেতার শেষ যাত্রার ভিডিওকে বর্তমান কাশ্মীর পরিস্থিতি বলে ট্যুইট পাকিস্তানের মন্ত্রীর, altnews এর ফ্যাক্ট চেকে পর্দাফাঁস

ফেক নিউজে ছেয়ে গিয়েছে ভার্চুয়াল দুনিয়া। কখনও পুরনো কোনও ছবিকে বর্তমান বলে চালানো হচ্ছে, আবার কখনও ঘটনার সঙ্গে সম্পর্কহীন কোনও ছবিকে জুড়ে দেওয়া হচ্ছে স্পর্ষকাতর কোনও বিষয়ের সঙ্গে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ঠিক-ভুলের ফারাক করা ক্রমেই কঠিন হয়ে উঠছে। এমনই একটি ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় সাড়া ফেলেছে। কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের এক মন্ত্রীর ট্যুইটে এভাবেই ব্যবহার করা হয়েছে বহু পুরনো একটি ভিডিও এবং দাবি করা হয়েছে, বর্তমান কাশ্মীর পরিস্থিতিকে। altnews এর ফ্যাক্ট চেকে ধরা পড়েছে পাকিস্তানের মন্ত্রীর মিথ্যাচার।

পাকিস্তানের মন্ত্রী আলি হায়দার জাইদি শুক্রবার একটি ট্যুইট করেন। তাতে একটি ভিডিও অ্যাটাচ করে তিনি লেখেন, হাজার হাজার কাশ্মীরি মানুষ ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পথে নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। সেখানেই একটি ভিডিও তুলে ধরে তিনি দাবি করেন, এটাই এখন কাশ্মীরের ছবি। সত্য-মিথ্যা যাচাই না করে এক হাজারেরও বেশি রিট্যুইট হয় পোস্টটি।

ফেসবুকেও এমনই দাবি করে ঘুরতে থাকে ভিডিওটি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই ভিডিওর সত্য সন্ধানে নামে altnews। গুগলে জেনেরিক সার্চের মাধ্যমে দেখা যায়, ইউটিউবে একাধিক ব্যবহারকারী ৯ ই জুলাই, ২০১৬ তারিখে বুরহান ওয়ানির শেষ যাত্রা শীর্ষক শিরোনামে এই ভিডিওটি পোস্ট করেছেন। হিজবুল কমান্ডার বুরহান ওয়ানির অন্তিম যাত্রার এই ভিডিও অবলীলায় বর্তমান কাশ্মীরের ছবি বলে চালিয়ে দিতে চেয়েছিলেন পাকিস্তানের মন্ত্রী।

পাকিস্তানের মন্ত্রীর ট্যুইট করা বর্তমান কাশ্মীরের ছবির সঙ্গে বুরহান ওয়ানির অন্তিম যাত্রার ভিডিওর হুবহু মিল স্পষ্ট করে বোঝার জন্য দুটি ছবিকে পাশাপাশি রাখা হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, ২০১৬ সালে ইউটিউবে পোস্ট করা ভিডিওয় হলুদ ছাতা, সবুজ পতাকা এবং ফেজ টুপি ও লাল শার্ট পরিহিত এক ব্যক্তির ছবি হুবহু একইভাবে রয়েছে পাকিস্তানের মন্ত্রীর ট্যুইট করা ভিডিওতেও। ইন্ডিয়া টুডে চ্যানেলেও ওয়ানির অন্তিম যাত্রার এই ভিডিও দেখানো হয়েছিল।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর সাধারণ কাশ্মীরিরা ক্ষুব্ধ বলে পাকিস্তানের দাবির স্বপক্ষে সেই দেশের মন্ত্রীর শেয়ার করা ভিডিও ক্লিপের সত্যতা আজ সকলের সামনে। ২০১৬ সালে উপত্যকায় মৃত জঙ্গি নেতার শেষ যাত্রার ছবিকে ৩ বছর পরের হকিকত বলে চালিয়ে ঠিক কোন আবেগে খোঁচা দিতে গিয়েছিলেন পাকিস্তানের মন্ত্রী জাইদি? প্রশ্ন নেটিজেনদের।

Comments
Loading...