শান্তিপূর্ণ পঞ্চায়েতের পুনর্নির্বাচন, বৃহস্পতিবার ফল ঘোষণা

দু’একটি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ছাড়া বুধবার শান্তিপূর্ণভাবেই শেষ হল রাজ্যের ১৯ জেলার ৫৭২টি বুথে পঞ্চায়েতের পুনর্নির্বাচন। শান্তিপূর্ণ ভোটপর্বের মাঝেই দু-একটি বিক্ষিপ্ত ঘটনার খবরও মিলেছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে এক প্রিসাইডিং অফিসারের রহস্য মৃত্যুর ঘটনায় এদিন স্থানীয় এসডিও টি এন শেরপাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান ভোট কর্মীরা। তাঁকে লক্ষ্য করে জুতো এবং জল ছোড়া হয়। ভোট গণনার দিন উপযুক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছেন ভোট কর্মীরা। অন্যদিকে, মালদার রতুয়ার ৭৬ ও ৭৯ নং বুথে এদিন পুনর্নির্বাচন চলাকালীন ব্যালট বাক্স লুঠের অভিযোগ ওঠে একদল দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। পরে অবশ্য ব্যালট বাক্স উদ্ধার করে পুলিশ। বোমাবাজির খবর মিলেছে মর্শিদাবাদের একটি ভোট কেন্দ্রের বাইরে থেকেও। ঘটনায় দুই তৃণমূল কর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এই জেলার ১৭টি বুথে পুনর্নির্বাচনের নির্দেশ দিয়েছিল কমিশন। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীর পানিখালি থেকে এদিন প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র এবং গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। উত্তর ২৪ পরগনার ভালুকাতে এদিন পুনরায় ভোটপর্ব চলাকালীন এলাকায় বেশ কিছু বহিরাগত ভিড় করে।
এছাড়াও এদিন ভোট পরবর্তী হিংসার খবর মিলেছে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর থেকে। এখানে ফরওয়ার্ড ব্লক ও নির্দল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক নির্দল সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনায় আহত হয়েছেন চার জন। সূত্রের খবর, রাজ্যে ১৪ মে পঞ্চায়েত ভোট চলাকালীন অশান্তি এবং প্রাণহানি সংক্রান্ত যে রিপোর্ট রাজ্যের তরফে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে পাঠানো হয়েছিল তাতে সন্তুষ্ট নয় কেন্দ্র। রাজ্যের পাঠানো রিপোর্টকে ‘অসম্পর্ণ’ এবং ‘অস্পষ্ট’ বলে ফের রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবের কাছে রিপোর্ট তলব করেছে কেন্দ্র।
অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার ভোট গণনা পর্ব নির্বিঘ্নে করতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার ভোট গণনার সময় রাজ্যের ৩৩০টি গণনা কেন্দ্রের প্রতিটিতে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। গণনা পর্ব চলাকালীন যাতে বাইরে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে ব্যাপারেও সতর্ক রয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। গণনা পর্ব শেষ না হওয়া পর্যন্ত করা যাবে না বিজয় মিছিল। এই মর্মে সমস্ত জেলার জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের নির্দেশ পাঠানো হয়েছে কমিশনের তরফে।

Comments
Loading...