সাপ লুডোর কলকাতা লিগে চ্যাম্পিয়ন হবে কে? ইস্টবেঙ্গল না পিয়ারলেস, জর্জ বা ভবানীপুর? পিছিয়ে মোহনবাগান

কলকাতা লিগ কি এবার জিততে পারবে কোনও বড় দল? নাকি ৬১ বছর পর লিগ যাবে তিন প্রধানের বাইরে? এই প্রশ্নটাই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে কলকাতা ময়দানে। এবারের মত শেষ কোন বার এতটা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হয়েছিল কলকাতা লিগ, তা মনে করতে পারছেন না ময়দানের সঙ্গে যুক্ত পুরনো মানুষজনও।
প্রতিটা দল ৬-৭টা ম্যাচ খেলে ফেলেছে। বাকি আর ৪-৫টি করে ম্যাচ। লিগের শেষের দিকে দাঁড়িয়ে এখনও বলা যাচ্ছে না, এবারের লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি কার। বর্তমানে যা পরিস্থিতি, তাতে পিয়ারলেস, জজ টেলিগ্রাফ কিংবা ভবানীপুর এর মত কোন ছোট দল এবার লিগ চ্যাম্পিয়ন হলে, অবাক হওয়ার মত কিছু থাকবে না। আবার এখনও পর্যন্ত যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে ইস্টবেঙ্গলেরও। এরিয়ানের কাছে হেরে পিছিয়ে পড়লেও অঙ্কের বিচারে এখনও আশা আছে মোহনবাগানেরও। লিগের হিসাবে এবার দেখে নেওয়া যাক কোথায় দাঁড়িয়ে কোন দল।
শেষবার ১৯৫৮ সালে তিন প্রধানের বাইরে কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ইস্টার্ন রেল। তারপর পেরিয়ে গেছে ছয় দশক। কোনও তথাকথিত ছোট দল চ্যাম্পিয়ন হয়নি। তবে এবার সেই সম্ভাবনা জোরালো। লিগ টেবিলের শীর্ষে আছে পিয়ারলেস। ৬ ম্যাচ খেলে তাদের পয়েন্ট ১৩। গোল পার্থক্য ১০। জহর দাসের দল ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগানকে হারিয়ে চমকে দিয়েছে। এবারের লিগে এখনও পর্যন্ত সব থেকে বেশি গোল করেছে তারা। দারুণ ফর্মে আছেন দলের মূল স্ট্রাইকার ক্রোমা। পিয়ারলেস বাকি ম্যাচগুলোয় পয়েন্ট নষ্ট না করলে, তারাই চ্যাম্পিয়ন।
লিগ জয়ের অন্যতম দাবিদার আরও দুটি ছোট দল জর্জ টেলিগ্রাফ এবং ভবানীপুর। জর্জের সঙ্গে পিয়ারলেসের পয়েন্টের ব্যবধান মাত্র ১। লিগের শেষ রাউন্ডে দু’দল মুখোমুখি হবে। সেখানেই হয়তো ফয়সালা হতে পারে এবারের লিগের। জর্জ টেলিগ্রাফ ইতিমধ্যেই হারিয়ে দিয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে। লিগ জয়ের সম্ভাবনা আছে ভবানীপুরেরও। ৭ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৩ পয়েন্ট। তবে তাদের তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যান্য দলগুলোর দিকে। আর জিততে হবে ইস্টবেঙ্গল, পিয়ারলেস এর মত কঠিন ম্যাচ। দলের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী গতবার মোহনবাগানকে কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন। এবার যদি ভবানীপুরকে চ্যাম্পিয়ন করতে পারেন, তাহলে অবশ্যই দৃষ্টান্ত স্থাপন করবেন।
পিয়ারলেসের কাছে হেরে লিগের স্বপ্নে ধাক্কা লেগেছে ইস্টবেঙ্গল-এর। তবে এখনও সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেছে বলা যায় না। পিয়ারলেসের থেকে এক ম্যাচ বেশি খেলে সমান পয়েন্টে রয়েছে আলেজান্দ্রোর দল। তাদের যে চ্যাম্পিয়ন হতে গেলে নিজেদের সব ম্যাচ জিততেই হবে তা নয়, সেই সঙ্গে তাকিয়ে থাকতে হবে পিয়ারলেসের পয়েন্ট নষ্টের দিকে। সঙ্গে অবশ্যই বাড়িয়ে রাখতে হবে গোল পার্থক্য। মোহনবাগানের লিগ জয়ের সম্ভাবনা অনেকটাই কম। তবে এখনও শেষ হয়ে যায়নি। তাদেরও সমীকরণটা একই। জিততে হবে নিজেদের সব ম্যাচ। তাকিয়ে থাকতে হবে লিগ টেবিলের উপর দিকে থাকা দলগুলোর পয়েন্ট নষ্টের দিকে। ৭ ম্যাচ খেলে মোহনবাগানের সংগ্রহ ১১ পয়েন্ট।

Comments
Loading...