কর্ণাটকে সরকার গড়ার চূড়ান্ত প্রস্তুতি বিজেপির, চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন ইয়েদুরাপ্পা

সমস্ত জল্পনার অবসান। সরকার গঠনের ১৪ মাসের মধ্যে পতন হল কর্ণাটকে কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকারের। মঙ্গলবার আস্থা ভোটে পরাজিত হয়ে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রিত্ব খোয়ালেন এইচডি কুমারস্বামী। ৬ ভোটের ব্যবধানে বিজেপির কাছে পরাজয় স্বীকার কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকারের। মঙ্গলবার কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকারের পক্ষে পড়ে ৯৯ টি ভোট এবং ১০৫ টি ভোট যায় বিজেপির পক্ষে। এরমধ্যেই রাজ্যপালের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে সরকার গড়ার দাবি জানানো হবে বলে বিজেপি সূত্রে খবর। প্রত্যাশিতভাবেই কর্ণাটকের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন বিএস ইয়েদুরাপ্পা। চতুর্থ বারের জন্য কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসবেন তিনি।
গত ১৪ মাসে কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকার বেশ কয়েকবার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোর মুখে পড়েছে এবং ঘুরেও দাঁড়িয়েছে। কিন্তু সপ্তাহ দুয়েক ধরে ১৬ জন বিধায়কের পদত্যাগ এবং ২ জন নির্দল বিধায়ক কুমারস্বামী সরকারের ওপর থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার পর সরকার পড়ে যাওয়া ছিল স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। গত শুক্রবার থেকে নানা টানাপোড়েনের পর শেষপর্যন্ত মঙ্গলবার কর্ণাটকের বিধানসভায় আস্থাভোট সম্পন্ন হয়।
আস্থাভোটে জেতার পর কর্ণাটকের বিজেপি সভাপতি তথা হবু মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পার ট্যুইট, ‘এটাই কর্মফল’। ইয়েদুরাপ্পা বলেন, গণতন্ত্রের জয় হয়েছে। কুমারস্বামী সরকারকে নিয়ে বীতশ্রদ্ধ ছিলেন কর্ণাটকের মানুষ। বিজেপি সরকারের আমলে উন্নয়নের নতুন যুগের সূচনা হবে বলে মন্তব্য করেন ইয়েদুরাপ্পা। অন্যদিকে, কংগ্রেসের অভিযোগ, ঘোড়া কেনাবেচায় সফল হয়েছে বিজেপি। কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরার তীব্র কটাক্ষ, বিজেপি একদিন বুঝবে, টাকা দিয়ে সবকিছু কেনা যায় না, সবাইকে বোকা বানানো যায় না, মিথ্যে একদিন ঠিক প্রকাশ পাবে।

Comments
Loading...