খাবার তো নিজেই ধর্ম! হিন্দু ডেলিভারি বয়ের দাবিতে অর্ডার বাতিল করা জব্বলপুরের যুবককে মোক্ষম জবাব জ্যোম্যাটোর

‘খাবারের কোনও ধর্মীয় ভেদাভেদ নেই, খাবার নিজেই ধর্ম’, মধ্যপ্রদেশের জনৈক অমিত শুক্লার ‘হিন্দু’ ডেলিভারি বয়ের আবেদন নস্যাৎ করে জোম্যাটোর ট্যুইট প্রশংসা কুড়িয়েছে নেটিজেনদের।
মঙ্গলবার রাতে মধ্যপ্রদেশের জব্বলপুরের বাসিন্দা জনৈক অমিত শুক্লা অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপ জোম্যাটোয় খাবার অর্ডার করেছিলেন। তবে জোম্যাটোর কাছে তাঁর আবেদন ছিল, ফুড ডেলিভারি বয় যেন হিন্দু হন। এ নিয়ে জোম্যাটোকে একের পর এক মেসেজ করেন তিনি। কিন্তু জোম্যাটো সেই আবেদন গ্রাহ্য না করায়, শেষে অর্ডার বাতিল করে দেন অমিত শুক্লা।

এরপর জোম্যাটোকে বিঁধে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দেন অমিত শুক্লা। একটি ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘এইমাত্র জোম্যাটোর অর্ডার বাতিল করলাম।’ অমিতের দাবি, তাঁর খাবার ডেলিভারির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল এক অহিন্দু ডেলিভারি বয়কে। তিনি জোম্যাটোর কাছে আবেদন করেন, ওই ডেলিভারি বয়ের বদলে কোনও হিন্দু ডেলিভারি বয়কে যেন তাঁর খাবার পৌঁছনোর দায়িত্ব দেওয়া হয়। সেই আবেদন গ্রহণ না করায় খাবারের অর্ডার বাতিল করে দেন বলে ট্যুইটারে জানান জব্বলপুরের ওই যুবক।
বুধবার ভোরে জোম্যাটোর তরফে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক ছোট্ট প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়। লেখা হয়, ‘খাবারের কোনও ধর্মীয় ভেদাভেদ নেই, সে নিজেই ধর্ম’। জোম্যাটোর প্রতিষ্ঠাতা দীপেন্দর গোয়েল ট্যুইটে লেখেন, ভারতের মূল্যবোধের পথে বাধা হয়, এমন কোনও ব্যবসা তাঁরা করবেন না। ধর্মান্ধতা ও গোঁড়ামির জবাবে জোম্যাটোর প্রতিক্রিয়ার সাধুবাদ নেটিজেনদের মধ্যে।

যদিও অমিত শুক্লা নামে ওই ব্যক্তির অভিযোগ, অর্ডার বাতিল করার পর টাকা ফেরত পাননি তিনি। এ নিয়ে আদালতে যাবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জব্বলপুরের ওই যুবক।

Comments
Loading...