ভোট শেষ হলেই দেশজুড়ে লকডাউন? চাঞ্চল্যকর দাবি অভিষেকের

অভিষেকের অভিযোগ, আগে যেন তেন প্রকারে বাংলা দখল করবে বিজেপি, তারপরেই লকডাউন করবে

ভোট মিটলেই দেশজুড়ে লকডাউন। মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের লালগোলার জনসভা থেকে চাঞ্চল্যকর দাবি অভিষেক ব্যানার্জির। বললেন, ভোটের অপেক্ষায় বসে আছে কেন্দ্র, ভোট মিটলেই সারা দেশে লকডাউন করবে। অভিষেকের অভিযোগ, আগে যেন তেন প্রকারে বাংলা দখল করবে বিজেপি, তারপরেই লকডাউন করবে।

সারাদেশে ইতিমধ্যে করোনা সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ইতিমধ্যেই দিল্লি, রাজস্থানে লকডাউন ঘোষণা করেছে সেখানকার সরকার। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যবাসীর মনেও লকডাউন নিয়ে আশঙ্কা রয়েছে। তাঁর মধ্যেই তৃণমূল সংসদের এই দাবি ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।

পাশাপাশি, এদিন তিনি বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ শানান। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাজ্যে প্রচারে এসে প্রায় প্রত্যেকটি জনসভা থেকে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশ নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ শানাচ্ছেন। অভিষেকের পাল্টা জবাব, অনুপ্রবেশ যদি হয়েও থাকে তা হয় বর্ডার পেরিয়ে। বর্ডারের দায়িত্ব কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের। অনুপ্রবেশের দায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরই। অমিত শাহের ইস্তফারও দাবি করেন অভিষেক ব্যানার্জি।

মঙ্গলবারের জনসভা থেকে বিজেপির পাশাপাশি কংগ্রেস, সিপিএমকে একযোগে আক্রমণ করেন তিনি। মমতা ব্যানার্জি কংগ্রেসে থাকাকালীন কংগ্রেসের সঙ্গে সিপিএমের আঁতাতের যে অভিযোগ তুলতেন তা আজ প্রমাণিত, দাবি অভিষেকের।

[আরও পড়ুন- কেন্দ্রের ভ্যাকসিন বণ্টন নীতি ফাঁপা ও অন্তঃসারশূন্য! মোদীকে পত্রাঘাত মমতার]

কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরীকে একহাত নেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। তাঁর অভিযোগ অধীর চৌধুরী বিজেপির হয়ে কাজ করছেন। তাঁর কোথায়, মোদী সরকার কোনও বিরোধী নেতাকে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সুরক্ষা দেন না, কিন্তু অধীর চৌধুরী পান। ভাষণে এদিন শীতলকুচির প্রসঙ্গও তোলেন অভিষেক। বলেন, শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চার জনের মৃত্যু নিয়ে অধীর চৌধুরী সিবিআই তদন্ত চেয়েছেন। উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তাঁর প্রশ্ন, এই ঘটনায় সিবিআই কখনও নিরপেক্ষ তদন্ত করবে?

Comments
Loading...