সুপ্রিম কোর্টে খারিজ অযোধ্যা রায় পুনর্বিবেচনার সমস্ত আর্জি, মন্দির তৈরিতে আর আইনি বাধা নেই

অযোধ্যা জমি মামলার রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি খারিজ (Ayodhya Review Plea) করে দিল দেশের শীর্ষ আদালত। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি শরদ আনন্দ বোবদের নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ এই রায় দিয়েছে।

রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছিল অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভা, অল ইন্ডিয়া মুসলিম পারসোনাল ল’ বোর্ডের মতো বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তি। রায় পুনর্বিবেচনার জন্য মোট ১৮ টি আবেদন জমা পড়েছিল সুপ্রিম কোর্টে। এই ১৮ টি আবেদনের মধ্যে ৯ টি  আবেদন করা হয়েছিল মামলার বাদী-বিবাদী পক্ষের তরফে এবং বাকি ৯ টি আবেদন করা হয়েছিল তৃতীয় পক্ষের তরফে। এই তৃতীয় পক্ষের মধ্যে রয়েছেন ইরফান হাবিব, হর্ষ মান্দার, নন্দিনী সুন্দর, প্রভাত পট্টনায়কের মতো সমাজের বিশিষ্টজনেরা। তাঁরাও রিভিউ পিটিশন দায়ের করে এই মামলা পুনর্বিবেচনা করার আর্জি জানিয়েছিলেন।
অনেকে আবেদন করেছিলেন, এই রায়ের উপর অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি করুক কোর্ট। সেই আবেদনও এদিন নাকচ করে দেন বিচারপতিরা। সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশের ফলে অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দির নির্মাণে আর কোনও আইনি বাধা রইল না।
গত ৯ নভেম্বর তৎকালীন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করেছিল। রায়ে বলা হয়েছিল, ওই স্থানে হিন্দুরা নিজেদের দাবি প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছে। সেখানে রাম মন্দির গড়ে উঠতে কোনও বাধা নেই। এই মর্মে কেন্দ্রকে একটি ট্রাস্ট গঠন করে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে মন্দির তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশও দেয় শীর্ষ আদালত। অন্যদিকে, মুসলিম পক্ষের কথা মাথায় রেখেও সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, অযোধ্যার মধ্যেই ৫ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দিতে হবে মসজিদ গড়ার জন্য। রায়ের পর সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছিল,  তারা  খুশি, তাই এই রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি দাখিল করা হচ্ছে না।
তৎকালীন  প্রধান বিচারপতি এই রায়ের পরই অবসর নেওয়ায় এদিন এই রায় পুনর্বিবেচনার (Ayodhya Review Plea) আর্জি শোনেন বর্তমান প্রধান বিচারপতি শরদ আনন্দ বোবদের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ। এদিনের বেঞ্চে নয়া মুখ ছিলেন বিচারপতি খান্না। এদিন বন্ধ চেম্বারে এই মামলার শুনানি হয়।

Comments
Loading...