অমিত মালব্যর ট্যুইট ফ্ল্যাগ! ম্যানিপুলেটেড ভিডিও পোস্ট করে হলুদ কার্ড দেখলেন বিজেপি আইটি সেলের হেড, দেশে প্রথম

ভারতে এই প্রথম, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এডিটেড বা ম্যানিপুলেটেড ভিডিও পোস্ট করায় বিজেপির আইটি সেলের প্রধান তথা বাংলার সহ দায়িত্বপ্রাপ্ত অমিত মালব্যর ট্যুইট ফ্ল্যাগ করল ট্যুইটার কর্তৃপক্ষ। নির্বাচন চলাকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একাধিক ট্যুইট ফ্ল্যাগ করেছিল ট্যুইটার। ভারতে মালব্যই প্রথম।

ট্যুইটারে ভুয়ো অথবা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে এডিটেড বা ম্যানিপুলেটেড ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করলে, তাকে ফ্ল্যাগ করে কর্তৃপক্ষ। অর্থাৎ আপনি যে ভিডিওটি শেয়ার করলেন তার প্রামাণিকতা বা বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে সংশয় রয়েছে বলে পোস্টেই জানিয়ে দেওয়া হয়। চলতি ভাষায় হলুদ কার্ড। লাল কার্ড হল সাময়িক ব্যান, হ্যান্ডল বন্ধ করে দেওয়া বা নির্দিষ্ট ট্যুইট মুছে দেওয়া। ইউরোপ-আমেরিকাতে রাজনীতিবিদের ট্যুইট ফ্ল্যাগ করার কথা হামেশাই শোনা যায়। এবার ভারতে কোনও রাজনীতিবিদকে হলুদ কার্ড দেখালেন ট্যুইটার কর্তৃপক্ষ। 

বিতর্কের সূত্রপাত দিল্লি-হরিয়ানা সীমানায় কৃষকদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জের ভিডিও থেকে। ২৮ নভেম্বর কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সেই ছবি পোস্ট করে লেখেন, সবচেয়ে দুঃখজনক যে আজ মোদী কিসানকে দমন করতে জওয়ান নামিয়েছেন। তাতে দেখা যাচ্ছে একজন পুলিশ কর্মী লাঠি উঁচিয়ে মারতে যাচ্ছেন একজন বৃদ্ধ কৃষককে। 

সঙ্গে সঙ্গে পাল্টা আর একটি ভিডিও পোস্ট করেন অমিত মালব্য। সেখানে দেখা যাচ্ছে পুলিশ লাঠি তুলেছেন ঠিকই কিন্তু তা ভয় পাওয়ানোর জন্য। বিজেপি আইটি সেলের হেড রাহুল গান্ধীকে ট্যাগ করে লেখেন, আপনার মতো বেহায়া বিরোধী নেতা ভারত বহুকাল দেখেনি। 

তারপরই সামনে আসে ফ্যাক্ট চেকিংএর রিপোর্ট। যেখানে দেখা যাচ্ছে পুলিশ নির্বিচারে লাঠি চালাচ্ছে। ওই বৃদ্ধ কৃষককেও বেধড়ক মারতে দেখা যাচ্ছে পুলিশ কর্মীদের। কিন্তু অমিত মালব্য যে ভিডিওটি পোস্ট করে রাহুলের দাবিকে মিথ্যে বলে অভিযোগ করছেন, সেটি পুরো ভিডিওর একটি পার্ট। যেখানে পুলিশকে লাঠি চালাতে দেখা যাচ্ছে না। 

এরপরই অমিত মালব্যর ট্যুইটকে ফ্ল্যাগ করে ট্যুইটার। এর আগে দেশের কোনও রাজনীতিবিদের ট্যুইট ফ্ল্যাগ করার ঘটনা ঘটেনি। সেই অর্থে কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের সহকারী হিসেবে বাংলার দায়িত্ব পাওয়া অমিত মালব্য এই ক্ষেত্রে পথিকৃৎ হলেন।

Comments
Loading...