করোনাভাইরাস মোকোবিলায় হোমিওপ্যাথির দাওয়াই কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রকের, দেশের ২১ টি বিমানবন্দরে জারি সতর্কতা

করোনাভাইরাস মোকোবিলায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার দাওয়াই দিল কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রক। দেশজুড়ে উত্তরোত্তর বাড়ছে করোনোভাইরাসের আতঙ্ক। ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ৩০০-র বেশি মানুষকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালে পর্যবেক্ষণে রাখছেন চিকিৎসকেরা। করোনাভাইরাসের কোনও প্রতিষেধক না থাকলেও এই পরিস্থিতিতে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার ওপর মানুষকে ভরসা রাখতে বলেছে কেন্দ্র। আয়ুষ মন্ত্রকের অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা করুন।


এছাড়া আয়ুর্বেদিক পদ্ধতিতে এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর জন্যা আয়ুষ মন্ত্রক বেশ কয়েক দফা পরামর্শ দিয়েছে। প্রথমত, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা বাঞ্ছনীয়। কোনও কাজ শেষে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। জরিবুটি সহযোগে জলপানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। হাত না ধুয়ে চোখ, কান, মুখে হাত দিতে নিষেধ করা হয়েছে। এই ভাইরাস সংক্রমণের সময়ে অসুস্থ বোধ করলে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সর্দি, কাশি হলে বাইরে বেরলে মাস্ক পরতে পরামর্শ দিচ্ছে আয়ুষ মন্ত্রক। তাছাড়া হোমিওপ্যাথি চিকিৎসাই করোনাভাইরাস সংক্রামণের বিরুদ্ধে এই মুহূর্তে সব চেয়ে ভালো দাওয়াই বলে জানাচ্ছে আয়ুষ মন্ত্রক।

এদিকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সাতটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়াও অন্যান্য বিমানবন্দরেও স্ক্রিনিং ফেসিলিটি রাখার জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছিল বিভিন্ন রাজ্য। বুধবার থেকে এই ব্যবস্থা দেশের ২১ টি বিমানবন্দরে চালু হয়েছে।
দিল্লি, হায়দরাবাদ, মুম্বই, কোচিন, বেঙ্গালুরু, আহমেদাবাদ, অমৃতসর, কলকাতা, কোয়েম্বাটুর, গুয়াহাটি, গয়া, বাগডোগরা, জয়পুর, লখনউ, চেন্নাই, তিরুবনন্তপুরম, ত্রিচি, বারাণসী, ভাইজাগ, ভুবনেশ্বর ও গোয়া বিমানবন্দরে এই স্ক্রিনিং ফেসিলিটি রাখা হয়েছে বলে কেন্দ্র এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

Comments
Loading...