বাংলাদেশে মুক্তমনা লেখক এবং কমিউনিস্ট পার্টির নেতা শাহজাহান বাচ্চু খুন।

বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) মুন্সিগঞ্জ জেলার প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক, মুক্তমনা লেখক এবং প্রকাশক শাহজাহান বাচ্চুকে (৫৫) গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। সোমবার সন্ধ্যায় নিজের বাড়ির কাছে সিরাজদিখানে খুন হন তিনি। মুক্তমনা লেখক ছিলেন শাহজাহান বাচ্চু। বিশাখা প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারীও ছিলেন তিনি। এক সময় ব্লগও লিখেছেন তিনি। মৌলবাদীরাই তাঁকে খুন করেছে বলে অভিযোগ।

সোমবার সন্ধ্যায় শাহজাহান বাচ্চু সিরাজদিখানের মধ্যপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব কাকালদি এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসেছিলেন। সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ একটি মোটর সাইকেলে চেপে দুই দুষ্কৃতী হানা দেয় ওই চায়ের দোকানে। দোকান থেকে টেনে-হিঁচড়ে বের করা হয় তাঁকে। তারপর সামনে থেকে গুলি করে দুষ্কৃতীরা বোমা ফাটিয়ে পালিয়ে যায়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

এই নিয়ে বাংলাদেশে একের পর এক মুক্তমনা লেখক, কবি, ব্লগারের মৃত্যুতে সে দেশের সাহিত্যিক সমাজে শোকের ছায়া নেমে আসে। শাহজাহান বাচ্চুর প্রকাশনা সংস্থা বিশাখা অনেক ভাল সাহিত্য প্রকাশ করেছে। বছর তিনেক আগে জাগৃতি প্রকাশনার মালিক ফয়জল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। দীপন মুক্তমনা লেখক অভিজিত রায়ের বই প্রকাশ করেছিলেন। পরে অভিজিতকেও খুন করে মৌলবাদীরা। অভিজিত রায়ের পর ব্লগার নীলাদ্রি নিলয়, অনন্ত বিজয় দাস এবং ওয়াশিকুর বাবুও খুন হন একই কায়দায়। সব ক্ষেত্রেই মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ উঠেছে।

এদিন মুক্তমনা লেখক এবং বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির মুন্সিগঞ্জের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান বাচ্চুকে খুনের পেছনে রাজনৈতিক কোনও কারণ আছে কিনা তাও পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

 

Comments
Loading...