কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে জোর ধাক্কা চিন-পাকিস্তানের, কাশ্মীর অভ্যন্তরীণ বিষয়, ফের জানাল ভারত

জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ ইস্যুতে রাষ্ট্রপুঞ্জে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে জোর ধাক্কা খেল চিন ও পাকিস্তান। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপের প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতকে কোণঠাসা করার উদ্যোগ নিয়েছিল পাকিস্তান ও চিন। এই নিয়ে শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জে রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পরেও তেমন কোনও সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। বরং এই বৈঠকের প্রেক্ষিতে ভারত জানাল, উপত্যকা নিয়ে সিদ্ধান্ত ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার।
জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর রাষ্ট্রপুঞ্জে সওয়াল করে পাকিস্তান, তাদের সঙ্গ দেয় চিন। রাষ্ট্রপুঞ্জের ৫ স্থায়ী সদস্য ও ১০ অস্থায়ী সদস্যের উপস্থিতিতে শুক্রবার বৈঠক হয়। এই বৈঠক নিয়ে ভারতের রাষ্ট্রদূত তথা রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী সদস্য সৈয়দ আকবরুদ্দিন জানান, উপত্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য ভারত সরকার সবরকম চেষ্টা করছে এবং অনেকাংশে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। আকবরুদ্দিন জানান, ভারতের তরফে যে সিদ্ধান্ত ও পদক্ষেপ করা হয়েছে তাতে অনেক সময় কড়া হতে হয়। তিনি আরও জানান, কেন্দ্রীয় সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার লক্ষ্য হল উপত্যকার সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং ভালো সরকার পরিচালনা করা।
অন্যদিকে, রাষ্ট্রসঙ্ঘে নিযুক্ত চিনের রাষ্ট্রদূত বলেন, কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তান, উভয়েরই একতরফা পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকা উচিত বলে মনে করে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। চিনের রাষ্ট্রদূত ঝাং জুন বলেন, কাশ্মীরের পরিস্থিতি খুবই উত্তেজনাপূর্ণ এবং বিপজ্জনক। এই প্রেক্ষিতে ভারতের রাষ্ট্রদূত বলেন, ইসলামাবাদের উচিত সন্ত্রাসবাদ বন্ধ করে ভারতের সঙ্গে আলোচনা শুরু করা।
রাষ্ট্রসঙ্ঘের বৈঠকে ঢোকার আগে রাশিয়ার ডেপুটি স্থায়ী সদস্য দিমিত্রি পলিয়ানস্কি অবশ্য জানিয়েছিলেন, মস্কো মনে করে কাশ্মীর ইস্যু ভারত ও পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক বিষয়।
৫ ই অগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার করে নেয় কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্যটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল, জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখে ভাগ করার কথা ঘোষণা করে। এই প্রেক্ষিতে চিন ও পাকিস্তান রাষ্ট্রপুঞ্জে ধাক্কা খাওয়ায় ভারতের কূটনৈতিক জয় হল বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

Comments
Loading...