BIHAR RESULT: ২৯ টি আসনে লড়ে ১৯ টিতে এগিয়ে বামেরা! সিপিআইএমএল লিবারেশনের ভালো ফলের সম্ভাবনা

বিহার ভোট ফের আলোচনায় নিয়ে এল বামেদের। ঘোশি, দারাউলি, দুমরাও, বলরামপুর সহ ১৯ টি আসনে বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে বামেরা।

বিজেপির বিরুদ্ধে এককাট্টা লড়াই দিতে বিহারের সবচেয়ে বড়ো বাম দল সিপিআইএমএল লিবারেশন আগেই তেজস্বী যাদবের আরজেডির সঙ্গে নির্বাচনী জোট করতে রাজি ছিল। পরবর্তীতে মহাজোটের ছাতার তলায় আসে সিপিএম, সিপিআই। ভোটের ফলে দেখা গেল ৩ বামদল তরতর করে এগিয়ে যাচ্ছে জয়ের পথে।

২৪৩ আসনের বিহারে মহাজোটে ২৯ টি আসন দেওয়া হয়েছিল সিপিআইএমএল লিবারেশন, সিপিআই ও সিপিএমকে। বামদলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সিপিআইএমএল লিবারেশন। দুপুর ৩ টের প্রবণতা অনুযায়ী ১৯ টি আসনে এগিয়ে রয়েছে বামেরা। তার মধ্যে ১২ টিতে এগিয়ে সিপিআইএমএল লিবারেশন। ৩ বাম দলের সাফল্যের হার ৬৩ শতাংশ।

মনে করা হয়েছিল সহজেই তেজস্বীর নেতৃত্বে সরকার গড়বে মহাজোট। কিন্তু ফল গণনার প্রবণতা অন্য কথা বলছে। সবচেয়ে বড়ো দল হিসেবে সামনে এসেছে বিজেপি। তারপর লালু পুত্রের আরজেডি।

সিপিআইএমএল লিবারেশনের সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর ভট্টাচার্যের মতে, এবার বিহারের ভোট একটা আন্দোলনের চেহারা নিয়েছে। আর বামপন্থীদের তো আন্দোলনই ঘরবাড়ি। তাই এটা প্রত্যাশিত ছিল। বামেরা ভালো করলেও মহাজোট তো পিছিয়ে পড়ছে? লিবারেশনের জেনারেল সেক্রেটারি বলেন, বিহারে মহাজোটের ক্ষমতায় আসা নিশ্চিত। গণনা এগোলেই পরিষ্কার হবে।

বামেদের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের ঝলক দেখার পর বিহারের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, কংগ্রেসকে ৭০ টি সিট না দিয়ে বামেদের অতিরিক্ত কিছু আসন দিলে ফল অন্যরকম হোত।

বিহারের ফলে উজ্জীবিত দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বাংলার ভোটেও সমস্ত বামদলকে এক ছাতার তলায় আসার ডাক দিয়েছেন। তারঁ তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্য, আসল শত্রু বিজেপি। তাই আক্রমণের অভিমুখ হবে বিজেপি কেন্দ্রীক। কিন্তু বাংলার কিছু বামদল মনে করে তৃণমূল ও বিজেপি দুজনেই প্রধান শত্রু। এই করতে গিয়ে বিজেপি ফ্রি হ্যান্ড পেয়ে যায়। শেষে দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বলেন, বিহারের ফলের পর আশা করি বাংলার বামদলগুলো এটা নিয়ে নতুন করে ভাববে। তিনি স্পষ্ট বলেন, এই মুহূর্তে বিজেপিকে হারাতে কংগ্রেস-তৃণমূলে বাছাই করার পরিস্থিতি নেই।

Comments
Loading...