টেন্ডার নোটিস না মামলার তালিকা! চার পাতা জুড়ে অপরাধমূলক মামলার খতিয়ান প্রকাশ কেরলের বিজেপি প্রার্থীর

কমিশনের নির্দেশ ছিল, প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ফৌজদারি মামলা থাকলে, তিনদিন ধরে তা বহুল প্রচলিত সংবাদপত্রে প্রকাশ করতে হবে। সেই অনুযায়ী প্রার্থীরা সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপনও দিচ্ছেন। কিন্তু সংবাদপত্রের চারপাতা জুড়ে কেবল মামলার খতিয়ান! বৃহস্পতিবার যা দেখে চমকে উঠেছেন কেরলবাসী।

বিজেপি মুখপত্র ‘জন্মভূমি’র ‘পাথনামথিত্তা’ ক্রোড়পত্রে যে চারপাতার বিজ্ঞাপন ছাপা হয়েছে, তা কোনও সরকারি কাজে নামের তালিকা বা টেন্ডার নোটিস বলে ভুল করবেন না, সেটা আসলে বিজেপি প্রার্থী কে সুরেন্দ্রনের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক মামলার তালিকা!
নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ মেনে সংবাদপত্রে তাঁর বিরুদ্ধে মোট ২৪০ টি অপরাধমূলক মামলার তালিকা প্রকাশ করেছেন পাথনামথিত্তা লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী কে সুরেন্দ্রন। আর তা ছাপতেই লেগে গিয়েছে ৪ পাতা!

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের সরাসরি বিরোধিতা করে সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ বন্ধ করতে বিজেপি, আরএসএস-সহ কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি কেরলজুড়ে যে হিংসাত্মক আন্দোলন শুরু করেছিল, তার অন্যতম নেতা ছিলেন পাথনামথিত্তা কেন্দ্রের এই বিজেপি প্রার্থী। এক বৃদ্ধাকে সাবরীমালার গর্ভগৃহে ঢুকতে বাধা দিয়ে গ্রেফতার পর্যন্ত হতে হয়েছিল কে সুরেন্দ্রনকে। জেলে থাকাকালীনও, কেরলের বিভিন্ন প্রান্তে সাবরীমালা ইস্যুতে গোলমালের ঘটনায় তাঁর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের হয়। সেই মামলাগুলির মধ্যে রয়েছে, খুনের চেষ্টা, হিংসায় মদত দেওয়া, সরকারি ও সাধারণ মানুষের সম্পত্তির ধ্বংস থেকে শুরু করে অশালীন মন্তব্য করার অভিযোগও।

সংবাদপত্রের চার পাতা জুড়ে ২৪০ টি মামলার যে খতিয়ান বিজেপি প্রার্থী প্রকাশ করেছেন তাতে আর একটি চমকপ্রদ ব্যাপার হল, ওই বিজ্ঞাপন প্রকাশের খরচ আনুমানিক ২০ লক্ষ টাকা। অর্থাৎ, কমিশনের নির্দেশ মেনে ৩ দিন বিজ্ঞাপন দিলে, খরচ হবে প্রায় ৬০ লক্ষ টাকা। এদিকে নিয়ম বলছে, প্রত্যেক প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারে সর্বাধিক ৭৫ লক্ষ টাকা খরচ করতে পারবেন। তাহলে হিসেব অনুযায়ী, বিজেপি প্রার্থীর হাতে থাকে আর মাত্র ১৫ লক্ষ টাকা। যা দিয়ে লোকসভা ভোটের প্রচার সারা কার্যত অসম্ভব। তাহলে কী করে হবে প্রচার? এই প্রেক্ষিতে আশার কথা, জন্মভূমি সংবাদপত্রটি যেহেতু বিজেপির মুখপত্র, তাই বড়সড় ছাড় পেতে পারেন কে সুরেন্দ্রন।

Comments
Loading...