ধুঁকছে ‘এশিয়ার ডেট্রয়েট’ চেন্নাইয়ের অটোমোবাইল শিল্প, কাজ হারালেন গাড়ি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ৫ হাজার কর্মী

কয়েক মাস ধরেই দেশের গাড়ি শিল্পে যে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, এবার তার প্রভাব পড়ল এক সময়ে ‘এশিয়ার ডেট্রয়েট’ নামে পরিচিত চেন্নাইয়ে। ক্ষতির মুখে পড়ে তামিলনাড়ুর রাজধানীতে থাকা প্রথম শ্রেণির গাড়ি উৎপাদনকারী সংস্থাগুলি কর্মী ছাঁটাইয়ের রাস্তা নিয়েছে বেশ কয়েক মাস ধরে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন অটোমোবাইল সংস্থার প্রায় ৫ হাজার কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে বলে খবর।
বছরে ১৪ লক্ষ গাড়ি উৎপাদনের ক্ষমতা রাখে চেন্নাই। প্রতি মিনিটে ৩ টি গাড়ি তৈরিতে সক্ষম চেন্নাইর অটোমোবাইল সংস্থা এখন গভীর সঙ্কটে। হুন্ডাই, নিসান, বিএমডব্লিউ, ইয়ামাহা, টিভিএসের মতো চেন্নাইয়ের প্রত্যেকটি নামী গাড়ি নির্মাণ সংস্থার কারখানা এখন বিশাল চাপের মুখে পড়েছে।
গাড়ি বিক্রি কমে যাওয়ার ফলে পর্যায়ক্রমে উৎপাদন বন্ধ রাখছে তামিলনাড়ুর শিল্পতালুকে থাকা একাধিক অটোমোবাইল সংস্থা। তামিলনাড়ুর সিটু প্রেসিডেন্ট এ সুন্দররাজনের দাবি, মন্দার কারণে অন্তত ৫ হাজার কর্মীর কাজ গিয়েছে এ পর্যন্ত।  তিনি জানান, গত তিন মাস ধরে গাড়ি শিল্পে ভয়ানক মন্দা দেখা দিয়েছে, তার কোপ এড়াতে পারেনি কর্মীরা।
শুধু চেন্নাই নয়, গাড়ি শিল্পের এই ভয়াবহ ছবি এখন দেশের সর্বত্র। কয়েক মাসে দেশে ২৮৬ টি গাড়ি ডিলার ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছে, প্রায় ২ লক্ষ ৩০ হাজার মানুষ কর্মহীন হয়েছেন। গাড়ি শিল্পে এই গভীর সঙ্কটের সময় সরকারি হস্তক্ষেপ চেয়ে সপ্তাহ দুয়েক আগে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণের সঙ্গে বৈঠক করেন গাড়ি সংস্থার এক্সিকিউটিভরা। অর্থমন্ত্রীর কাছে অন্তত ১০ শতাংশ জিএসটি কমানোর আবেদন জানান তাঁরা।
অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বব্যাপী মন্দা তো আছেই, তার সঙ্গে এ দেশে কর্মসংস্থানের অভাব সহ বেশ কিছু অর্থনৈতিক কারণে গাড়ি বাজারের চাহিদা পড়তির দিকে। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া অটোমোবাইল সংস্থাগুলি এখন সরকারি পদক্ষেপের দিকে তাকিয়ে রয়েছে।

Comments
Loading...