বেল মিলল না দিশা রবির, এদিকে মানবাধিকারের প্রশ্ন তুলে টুইট গ্রেটা থুনবার্গের

কৃষক আন্দোলনকে সমর্থনের নামে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ ছিল দিশার বিরুদ্ধে।

“টুলকিট” শেয়ার করার অভিযোগে আরও তিন দিন বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিল দিল্লি আদালত। ভারতের কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করে গ্রেটা থুনবার্গ “টুলকিট” তৈরি করেছিলেন। এই “টুলকিট” নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় দিশা রবিকে। ১৩ ফেব্রুয়ারি দিশা রবিকে তাঁর বেঙ্গালুরুর বাড়ি থেকে তুলে আনা হয়, এরপর ১৪ ফেব্রুয়ারি দিল্লির পাটিয়ালা হাউস কোর্টে তাঁকে তোলা হয়। কৃষক আন্দোলনকে সমর্থনের নামে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ ছিল দিশার বিরুদ্ধে।

পাঁচদিনের পুলিশ হেফাজতে শেষ হলে শুক্রবার ফের আদালতে তোলা হয় দিশাকে। কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে ডাক দিয়ে নেট মাধ্যমে একটি “টুলকিট” শেয়ার করেছেন তাতে দেশদ্রোহিতাকে প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ দিল্লি পুলিশের সাইবার বিভাগ।

অন্যদিকে, দিশার পাশে দাঁড়িয়ে মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সুইডিশ পরিবেশ আন্দোলনকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ। “ফ্রাইডেস ফর ফিউচার” এর একটি পোস্ট শেয়ার করে গ্রেটা টুইট করেন, তাতে তিনি লিখেন, “বাক স্বাধীনতা এবং শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ এবং জমায়েতের মানবাধিকারের প্রাথমিক শর্ত”। সঙ্গে যুক্ত করেছেন #StandwithDishaRavi।

Comments
Loading...