গত দু’ বছরে তিনটি টেস্ট ম্যাচে গড়াপেটা হয়েছে, দাবি আল জাজিরার স্টিং অপারেশনে

ফের গড়াপেটার কালো ছায়া ভারতীয় ক্রিকেটে। গত দু’বছরে ম্যাচ ফিক্সিং হয়েছে মোট তিনটি টেস্ট ম্যাচে। চাঞ্চল্যকর এই দাবি করা হয়েছে ‘আল জাজিরা’ টেলিভিশন চ্যানেলের  ‘ক্রিকেট দুর্নীতি’ শীর্ষক এক তথ্যচিত্রে। ‘আল জাজিরা’র তদন্তমূলক সাংবাদিকতা বিভাগ এই কাজ করেছে। ওই টেলিভিশন চ্যানেলের সাংবাদিক ডেভিড হ্যারিসনের দাবি, একটি বেটিং চক্র এই কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। ডেভিডের আরও অভিযোগ, মুম্বইনিবাসী ভারতের এক প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটার, ভারতীয় একটি বিজ্ঞাপন সংস্থা, যাদের সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে যোগাযোগ আছে এবং দাউদ ইব্রাহিমের সংস্থা ‘ডি কোম্পানি’ এই ম্যাচ ফিক্সিং-এর সঙ্গে যুক্ত।
ওই তথ্যচিত্রের বেশ কিছু ভিডিও ইতিমধ্যেই ভারতের একটি প্রথম সারির দৈনিককে দিয়েছে বলে দাবি করেছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহির ‘আল জাজিরা’ টেলিভিশন চ্যানেল। সাংবাদিক ডেভিড হ্যারিসন আরও দাবি করেছেন, পিচ প্রস্তুতকারক, প্রাক্তন এবং বর্তমান ক্রিকেটার থেকে শুরু করে গোটা মরশুমের খেলার ওপরেই বাজি ধরা হত। এই বেটিং এর জন্য চলত তীব্র দর কষাকষি। ‘আল জাজিরা’র স্টিং অপারশেনে দাবি করা হয়েছে, পাকিস্থান, শ্রীলঙ্কার বেশ কিছু ক্রিকেটারও এই ম্যাচ ফিক্সিং-এ যুক্ত। শ্রীলঙ্কার গল ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পিচ কিউরেটর থরঙ্গা ইন্ডিকা নাকি স্বীকার করে নিয়েছেন, দুটি পিচ গড়াপেটার জন্য সেইভাবেই বানানো হয়েছিল। ২০১৬ সালের অগাস্ট মাসে মাত্র আড়াই দিনে টেস্ট হারে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৭ সালের জুলাই মাসের একটি টেস্ট ম্যাচে ভারত প্রথম ইনিংসে ৬০০ রান করে। ‘আল জাজিরা’ চ্যানেলের স্টিং অপারেশনে দাবি করা হয়েছে, এই দু’টি ম্যাচের ভাগ্যই আগে থেকে নির্ধারিত ছিল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা বা আইসিসি ইতিমধ্যেই জানিয়েছে, তারা বিষয়টিকে মোটেও লঘু করে দেখছে না। একটি তদন্তকারী দল ইতিমধ্যেই গঠন করা হয়েছে। তবে ‘আল জাজিরা’র এই স্টিং অপারেশনের ভিডিও যে ফের ক্রিকেট বিশ্বে বিতর্কে ঝড় তুলবে তা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়।

Comments
Loading...