নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসির সাজাই বহাল রাখল সুপ্রিম কোর্ট।

২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে নির্ভয়া গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্তদের মৃত্যুদণ্ডের সাজাই বহাল রাখল দেশের শীর্ষ আদালত। সোমবার প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি আর ভানুমতী ও অশোক ভূষণের বেঞ্চ এই রায় দিয়েছে। এর ফলে মুকেশ, পবন গুপ্তা এবং বিনয় শর্মার প্রাণদণ্ডের সাজা বহাল রইল। এই তিন অভিযুক্তই সুপ্রিম কোর্টে ২০১৭ সালের ৫ই মে রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছিল। যদিও আর এক অভিযুক্ত অক্ষয় কুমার সিংহ মৃত্যুদণ্ডের সাজার বিরুদ্ধে কোনও আবেদন জানায়নি।
২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাতে দক্ষিণ দিল্লিতে একটি বাসে বন্ধুর সঙ্গে সিনেমা দেখে বাড়ি ফেরার পথে প্যারামেডিক্যালের ওই ছাত্রীকে নৃশংসভাবে অত্যাচার করার পর ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয় বাস থেকে। টানা ১৫ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে নির্ভয়ার লড়াই থেমে যায় ২৯ শে ডিসেম্বর সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে। বাঁচানোর শেষ চেষ্টা হিসেবে বিশেষ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাঁকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তবু শেষ রক্ষা হয়নি। এই ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত রাম সিংহ তিহার জেলে আত্মহত্যা করে। আর এক অভিযুক্ত নাবালক হওয়ার জন্য তিন বছর হোমে কাটিয়ে মুক্তি পায়। নিম্ন আদালত এই মামলায় অভিযুক্তদের মৃত্যুদণ্ডের সাজা শোনায়। দিল্লি হাইকোর্টও, নিম্ন আদালতের সাজা বহাল রাখে। এরপরেও অভিযুক্তরা সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানায়। সোমবার সারা দেশের নজর ছিল নির্ভয়া কাণ্ডে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের দিকে। রায় ঘোষণার পর নির্ভয়ার মা আশাদেবী ও বাবা বদ্রীনাথ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন ‘সুপ্রিম কোর্টের এই রায় আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বাড়িয়ে দিল। কিন্ত অনেকটা সময় পেরিয়ে গেছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ওদের ফাঁসির সাজা কার্যকর হলেই ভালো’। আইনজীবীদের মতে, সুপ্রিম কোর্ট মৃত্যুদণ্ডের সাজা বহাল রাখার ফলে ওই তিন আসামীর কাছে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন জানানো ছাড়া কার্যত আর কোনও রাস্তাই খোলা থাকল না।

Comments
Loading...