Delhi Violence: মৃত বেড়ে ৩৪, থমথমে দিল্লিতে পুলিশের রুট মার্চ, শান্তি ফেরানোর আর্জি রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিবের

হিংসা ছড়ানোর পর কেটে গিয়েছে ৪ দিন। কিন্তু রাজধানী দিল্লিতে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। বেলা বারোটা অবধি ৩৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। আহত দুশোরও বেশি। তবে গত ৪ দিনের সঙ্গে আজকের দিল্লির মূল পার্থক্য হল, এদিন সকাল থেকেই রাজপথে দেখা মিলেছে পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীর জওয়ানদের। চলছে রুট মার্চ, পুলিশের তরফে মাইকে প্রচার। পথে নেমে পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা করতে দেখা গিয়েছে দিল্লি পুলিশের বড় কর্তাদের। সবমিলিয়ে হিংসা বিধ্বস্ত দিল্লির পরিস্থিতি আজও থমথমে।

আরও জানতে ক্লিক করুন, দিল্লি পুলিশকে তুলোধোনা করা বিচারপতির রাতারাতি বদলি

রবিবার থেকে উত্তর-পূর্ব দিল্লি জুড়ে সংঘর্ষ শুরু হলেও টানা ৭২ ঘণ্টা মুখে কুলুপ এঁটেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। শেষ পর্যন্ত বুধবার পরপর দুটি ট্যুইট করে দিল্লিবাসীর কাছে শান্তি রক্ষার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকেই দিল্লির হিংসা দীর্ণ এলাকায় টহল দিচ্ছিলেন এনএসএ অজিত ডোভাল। বুধবার দিনের বেলাও তিনি উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। কথা বলেন সাধারণ মানুষের সঙ্গে। সেখানেই তিনি সাধারণ মানুষকে পুলিশি নিরাপত্তা নিয়ে আশ্বস্ত করেন। তবে মুখে কুলুপ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের।

এদিকে দিল্লির ঘটনার প্রেক্ষিতে কোমরবেঁধে পথে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। বুধবার বিকেলে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর নেতৃত্বে পদযাত্রা করেন। পুলিশ বাধা দেওয়ায় রাস্তাতেই বসে পড়েন কংগ্রেস নেতা কর্মীরা। বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি দেওয়ারও কথা কংগ্রেসের।

এদিকে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও ক্রমশ চাপ বাড়ছে মোদী সরকারের উপর। দিল্লিতে সংঘর্ষের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। দিল্লিতে অবিলম্বে শান্তি ফেরানোর আর্জি জানিয়েছেন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব।

Comments
Loading...