অপরাধের অতীত থাকলে কাউকে ভোটে টিকিট দেওয়া উচিত নয়, সুপ্রিম কোর্টে জানাল নির্বাচন কমিশন

বিভিন্ন নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলি যে প্রার্থী দেয় তাঁদের অনেকের বিরুদ্ধেই ফৌজদারি মামলা থাকে, বা অতীতে অপরাধের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগ থাকে। এই প্রার্থীদের রাজনীতি থেকে দূরে রাখার চেষ্টা হলেও তা সফল হচ্ছে না সেভাবে। বিষয়টি নিয়ে আমজনতাও যথেষ্ট ক্ষুব্ধ। এই প্রেক্ষিতে এবার সুপ্রিম কোর্টে জাতীয় নির্বাচন কমিশন জানাল, তাদের মনে হয় এই ধরনের প্রার্থীদের রাজনৈতিক দলগুলির টিকিট না দেওয়াই উচিত। প্রয়েজনে এর জন্য নিয়ম আনার পক্ষেও সওয়াল করেছে নির্বাচন কমিশন।
শুক্রবার এক আবেদনের শুনানিতে নির্বাচন কমিশন শীর্ষ আদালতে জানায়, ২০১৮ সালে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, নির্বাচনে লড়া প্রার্থীদের সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানাতে হবে তাঁদের বিরুদ্ধে কী কী ফৌজদারি মামলা বা অভিযোগ রয়েছে। অতীত অপরাধের কোনও রেকর্ড থাকলে তাও জানাতে হবে। যাতে ভোটার সংশ্লিষ্ট প্রার্থীর বিষয়ে সচেতন হতে পারে। কিন্তু কমিশন মনে করে এরপরেও রাজনীতিতে দূর্বৃত্তায়ণ রোধ করা যায়নি।
তাই কমিশন মনে করছে, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলিকে সরাসরি নির্দেশ দেওয়া উচিত যাতে তারা অপরাধীদের টিকিট না দেয়।
নির্বাচন কমিশনের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আরএফ নরিমান এবং এস রবীন্দ্রভটের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, কমিশন এই বিষয়টি নিয়ে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করে তা এক সপ্তাহের মধ্যে আদালতে জানাক। রাজনীতি থেকে অপরাধীদের দূরে রাখতে শীর্ষ আদালতে মামলা করেছিলেন বিজেপি সাংসদ অশ্বীনি উপাধ্যায়। প্রয়োজনে তাঁর সঙ্গে আলোচনার পরামর্শও কমিশনকে দিয়েছে আদালত।
উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিল, কোনও প্রার্থীর অতীত অপরাধের রেকর্ড থাকলে তাঁকে ভোটের আগে তা সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানাতে হবে।

 

Comments
Loading...