তেজস এক্সপ্রেসের পর এবার ১৫০ ট্রেন ও ৫০ টি স্টেশন যাচ্ছে বেসরকারি হাতে, তৈরি বিশেষ টাস্ক ফোর্স

গত ৪ ঠা অক্টোবর দেশের ইতিহাসে প্রথম বেসরকারি ট্রেন হিসাবে লখনউ-দিল্লি তেজস এক্সপ্রেসের যাত্রা শুরু হয়েছে। এই প্রেক্ষিতে ট্রেন বেসরকারিকরণের পথে আরও এক ধাপ এগোল কেন্দ্র। বেসরকারি সংস্থার হাতে আরও ১৫০ টি ট্রেন ও ৫০ টি রেলওয়ে স্টেশনের দায়িত্ব সঁপে দেওয়ার নজিরবিহীন উদ্যোগ নিল মোদী সরকার।
কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদবকে একটি চিঠি দিয়েছেন। চিঠি থেকে জানা যাচ্ছে, বেসরকারিকরণের জন্য বিশেষ টাস্ক ফোর্স গঠন করা হচ্ছে। বেসরকারিকরণের উদ্যোগ সফল করার জন্য এই হাই প্রোফাইল গ্রুপে থাকছেন অমিতাভ কান্ত ও ভিকে যাদব। এছাড়াও থাকছেন কেন্দ্রের অর্থনীতি বিষয়ক সচিব, গৃহ এবং নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের সচিবরা। নীতি আয়োগের সিইও জানিয়েছেন, ৬ টি বিমানবন্দরকে বেসরকারি হাতে তুলে দিয়ে বিশেষ লাভ হয়েছে কেন্দ্রের। তাই রেলের ক্ষেত্রেও বেসরকারিকরণের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। মোট ৪০০ রেলওয়ে স্টেশনকে আধুনিকীকরণের জন্য সচেষ্ট হচ্ছে কেন্দ্র। কয়েকটির কাজ ইতিমধ্যেই সমাপ্ত হয়েছে। এই দফায় ৫০ টি রেলওয়ে স্টেশন এবং ১৫০ টি ট্রেনকে বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে বলে জানান নীতি আয়োগের সিইও। এই সংক্রান্ত আলোচনার জন্য প্যানেলে রেলওয়ে বোর্ডের ইঞ্জিনিয়ার এবং রেলওয়ে ট্র্যাফিক বোর্ডের প্রতিনিধিকেও রাখা হচ্ছে।
গত ৪ ঠা অক্টোবর প্রথম বেসরকারি ট্রেন হিসাবে যাত্রা শুরু করেছে লখনউ-দিল্লি তেজস এক্সপ্রেস। আইআরসিটিসি চালিত প্রথম বেসরকারি হাই-স্পিড ট্রেনের উদ্বোধন করেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এবার ১৫০ টি ট্রেনের বেসরকারিকরণের পথে কেন্দ্র।

Comments
Loading...