এয়ার সার্জিকাল স্ট্রাইক: ‘ইন্ডিয়াজ অ্যামেজিং ফাইটার্স’, ট্যুইট মমতার, সমর্থন রাহুলের

পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার ১২ দিন পর প্রত্যাঘাত ভারতের। আকাশপথে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তানের জঙ্গি ঘাঁটিতে আক্রমণ ভারতীয় বায়ুসেনার। সূত্রের খবর, পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের বালাকোট এবং পাক অধিকৃত কাশ্মীরের চাকোঠি ও মুজফরাবাদে একাধিক জইশ ঘাঁটিতে আক্রমণ চালায় বায়ুসেনা। মঙ্গলবার ভোররাত সাড়ে ৩ টে নাগাদ ১২ টি ‘মিরাজ ২০০০’ যুদ্ধ বিমান পাক সীমান্ত অতিক্রম করে জঙ্গি ঘাঁটিতে অন্তত এক হাজার কিলোগ্রাম বোমা বর্ষণ করে। মৃত্যুর খবর দুশো’র বেশি জঙ্গির।
এই অভিযান প্রসঙ্গে বিভিন্ন দলের শীর্ষনেতারা বায়ুসেনাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোশ্যাল মিডিয়ায় বায়ুসেনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি ট্যুইটারে লেখেন, IAF (ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স)-এর আর এক মানে হল, ইন্ডিয়া’স অ্যামেজিং ফাইটারস (ভারতের বিস্ময়কর যোদ্ধারা)। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এই খবরে উচ্ছাস প্রকাশ করে ট্যুইট করেন। তিনি ট্যুইটে লেখেন, ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটদের কুর্নিশ জানাই। রাহুলের ট্যুইট সমর্থন করে বিহারের প্রাক্তন উপ মুখ্যমন্ত্রী তেজস্বী যাদবও ট্যুইটে কুর্নিশ জানান বায়ুসেনাকে। কংগ্রেসের অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকেও শুভেচ্ছাবার্তা জানানো হয়েছে সেনার উদ্দেশ্যে। লেখা হয়, ভারতকে নিরাপদে রাখতে বায়ুসেনার নিরন্তর প্রচেষ্টা ও সংকল্পকে অভিবাদন।
সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে লেখেন, ভারতীয় বায়ুসেনা ও দেশের সব সেনাবাহিনীকে কুর্নিশ। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আপ নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল ট্যুইটে লেখেন, ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটদের বীরত্বকে কুর্নিশ। পাকিস্তানে জঙ্গিঘাঁটিতে হানার জন্য আমরা গর্বিত।
বায়ুসেনার অপারেশনের ব্যাপারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর সাংবাদিকদের বলেন, দেশের নিরাপত্তার জন্য সামরিক বাহিনীর তরফে এই পদক্ষেপ চূড়ান্ত বীরত্বের পরিচয় দিয়েছে। জাভড়েকর বলেন, প্রধানমন্ত্রী আগেই সেনাবাহিনীকে স্বাধীনতা দিয়েছিলেন এ ব্যাপারে। গোটা দেশ সেনার পাশে আছে।

এদিকে এয়ার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের খবর ছড়িয়ে পড়ার পরই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উত্সব শুরু হয়ে যায়। বারাণসীতে বাজি পুড়িয়ে আনন্দে মাতেন সাধারণ মানুষ।

Comments
Loading...