সমাবর্তনে উত্তাল জেএনইউ, পড়ুয়া-পুলিশ সংঘর্ষে লাঠি-জলকামান, হস্টেলের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলনে পড়ুয়ারা

হস্টেলের ফি বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে পড়ুয়া ও পুলিশের সংঘর্ষে উত্তাল জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ)। জেএনইউ কর্তৃপক্ষের নয়া হস্টেল নীতির বিরুদ্ধে গত ১৫ দিন ধরেই প্রতিবাদে মুখর পড়ুয়ারা। হস্টেলের জল ও বিদ্যুতের ফি বৃদ্ধি, লাইব্রেরি ব্যবহারের সময়ে পরিবর্তন, পড়ুয়াদের পোশাক বিধিতে বদল-সহ বেশ কয়েকটি নীতি পাল্টানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেনএনইউ কর্তৃপক্ষ। এর প্রতিবাদে বেশ কয়েক দিন ধরেই বিক্ষোভে সামিল হয়েছে জেএনইউ-র বাম জোট পরিচালিত ছাত্র সংসদ। তাদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রায় ৩০০ শতাংশ হস্টেল ফি বাড়িয়ে দেওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন সিংহভাগ পড়ুয়া। এ নিয়ে বেশ কয়েকদিন আন্দোলন চললেও জেএনইউ-র উপাচার্য মমিদালা জগদীশ কুমার তাঁদের সঙ্গে কোনও আলোচনায় বসতে রাজি হননি বলে অভিযোগ জেএনইউ-র ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের।

এই পরিস্থিতিতে সোমবার, বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের দিন আন্দোলনের তীব্রতা বাড়ে। জেএনইউ-র ছাত্র সংসদ আগেই জানিয়েছিল, তারা সমাবর্তন অনুষ্ঠান বয়কট করবে।
সোমবার বসন্তকুঞ্জে উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু যখন সমাবর্তনে ভাষণ দিচ্ছেন, আন্দোলনকারীরা তখন পুলিশের ব্যারিকেড টপকে সেদিকে এগোতে যান। শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ। ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন ছিল আগেই। যদিও পড়ুয়াদের প্রতিবাদে তাতে ভাটা পড়েনি। হাতে পোস্টার নিয়ে পুলিশি বাধা টপকে আন্দোলনকারীরা এগোতে গেলে লাঠি চালায় পুলিশ। জলকামান ছোঁড়া হয় তাঁদের উপর। পড়ুয়াদের অভিযোগ, যেখানে এক মাস আগে আড়াই হাজার টাকা হস্টেল ফি দিয়েছেন তাঁরা, তা একলাফে সাত হাজার টাকা করা হচ্ছে। প্রায় তিন গুণ ফি বাড়ানোর সময় আর্থিকভাবে পিছিয়ে থাকা পড়ুয়াদের কথা ভাবাই হয়নি।
সমাবর্তনে যোগ দিতে যাওয়ার সময় কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়ালের সঙ্গে ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের  দেখা হয়। ঐশী মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। পড়ুয়াদের দাবি খতিয়ে দেখা হবে বলে তাঁকে আশ্বাস দেন পোখরিয়াল। যদিও আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনড় থাকেন তাঁদের অবস্থানে। তাঁদের দাবি, উপাচার্যকে আলোচনায় বসতে হবে। কিন্তু পড়ুয়াদের প্রতিবাদ সত্ত্বেও পরিবর্তিত হস্টেল নীতিতে অনড় জেএনইউ কর্তৃপক্ষ। বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের কাছে অন্দোলন প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছে তারা। নয়া হস্টেল নীতি প্রত্যাহার না করা হলে আন্দোলন চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। সব মিলিয়ে উত্তপ্ত দিল্লির জেএনইউ চত্বর।

Comments
Loading...