মেন্টরকে নিয়ে কু-কথা প্রজ্ঞা সিংহের, জবাব দিতে ভোপালে ভোটে লড়ছেন হেমন্ত কারকারের সহকর্মী

‘মেন্টর’ হেমন্ত কারকারে সম্পর্কে বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা সিংহের মন্তব্যে দুঃখ পেয়েছেন, তাই জবাব দিতে প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়ালেন কারকারের প্রাক্তন সহকর্মী রিয়াজুদ্দিন দেশমুখ।
২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় অভিযুক্ত সাধ্বী প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুর ভোপালের বিজেপি প্রার্থী হওয়ার পরে মন্তব্য করেছিলেন, মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন এটিএস প্রধান হেমন্ত কারকারের মৃত্যু হয়েছে তাঁর অভিশাপে। ‘হেমন্ত কারকারে ছিল দেশদ্রোহী এবং ধর্মদ্রোহী। আমি ওকে বলেছিলাম, তোর সর্বনাশ হবে। দেড় মাস পরেই ২৬/১১ র আক্রমণে কারকারে মারা গিয়ে শিক্ষা পেয়েছে’- সাধ্বীর এই বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদেই তাঁর বিরুদ্ধে ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার রিয়াজুদ্দিন দেশমুখ। সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ঔরঙ্গাবাদের এই পুলিশ অফিসার বলেন, ১৯৮৮ সালে হেমন্ত কারকারে আকোলার এসপি থাকাকালীন রিয়াজুদ্দিন দেশমুখ ছিলেন সাব-ইন্সপেক্টর। রিয়াজুদ্দিন দেশমুখের কথায়, হেমন্ত কারকারের মতো একজন বীর, নির্ভীক এবং সৎ অফিসার সম্পর্কে প্রজ্ঞা সিংহের এমন মন্তব্য তাঁকে ভীষণভাবে পীড়া দিয়েছে। ‘মেন্টর’ সম্পর্কে প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুরের কুকথার প্রতিবাদেই ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রিয়াজুদ্দিন দেশমুখ। অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক জানান, গত ২৩ শে এপ্রিল নির্দল প্রার্থী হিসেবে নিজের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। কোনও চাপের মধ্যেই এই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করবেন না বলেও জানান রিয়াজুদ্দিন দেশমুখ।
২০০৮ এর ২৯ শে সেপ্টেম্বর মুম্বই শহর থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরের মালেগাঁওয়ে বিস্ফোরণে ৬ জনের মৃত্যু হয়, আহত হন শতাধিক মানুষ। এই মামলার তদন্তভার নেয় মহারাষ্ট্র এটিএস। যার প্রধান ছিলেন হেমন্ত কারকারে। শুরু থেকেই প্রজ্ঞা সিংহকে বাঁচাতে চাপ আসতে থাকে হেমন্ত কারকারের উপর, কিন্তু কোনও চাপের কাছেই মাথা নত করেননি তিনি। এরপর মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলার তদন্তভার যায় এনআইএ-র হাতে। এনআইএ পরে আদালতে জানায় প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুরের বিরুদ্ধে প্রমাণ মেলেনি। তাই তাঁকে বেকসুর খালাস করা হোক। কিন্তু আদালত এনআইএ’র ক্লিনচিট খারিজ করে দিয়ে বলে, যাঁর বাইক বিস্ফোরণস্থলে পাওয়া যায়, তাঁর বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলছে না, এই দাবি মেনে নেওয়া কঠিন
২০১৭ সালে শারীরিক কারণে তাঁকে জেল থেকে মুক্তি দেয় আদালত। কয়েক সপ্তাহ আগে ভোপাল লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী হন প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুর। তারপর হেমন্ত কারেকারে সম্পর্কে এমন বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন তিনি।

Comments
Loading...