কর্ণাটকে জেডিএস-কংগ্রেস জোট সরকার ফেলতে অধ্যক্ষকে ৫০ কোটি টাকা দিতে চেয়েছে বিজেপিঃ কুমারস্বামী

কর্ণাটকে জেডিএস-কংগ্রেস জোট সরকারকে ফেলতে বিধানসভার অধ্যক্ষকে ৫০ কোটি টাকা ঘুষ দিতে চেয়েছিল বিজেপি, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামীর এমনই অভিযোগে টালমাটাল রাজ্য-রাজনীতি। গত একমাস ধরে, কর্ণাটকে জোট সরকারকে ফেলতে প্রধান বিরোধী দল বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করছে বলে অভিযোগ করে আসছেন জেডিএস নেতারা। কংগ্রেস ও জেডিএস-এর বিধায়কদের ভাঙিয়ে গেরুয়া শিবিরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ উঠছিল। এই অবস্থায়, শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর নয়া অভিযোগে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে কর্ণাটকে।
কর্ণাটকে জোট সরকারকে ফেলতে বিধানসভার অধ্যক্ষ তথা কংগ্রেস নেতা আর রমেশ কুমারকে ৫০ কোটি টাকা ঘুষ দিতে চেয়েছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি ইয়েদুরাপ্পা, বিস্ফোরক অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর। শনিবার মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ নস্যাৎ করে অবশ্য স্পিকার আর রমেশ কুমার সাংবাদিকদের বলেন, এমন কোনও কথা হয়নি ইয়েদুরাপ্পার সঙ্গে।
গত দু’দিন ধরে কর্ণাটকের বিজেপি বিধায়করা বিধানসভার অধিবেশন অচল করে রেখেছেন। তাঁদের অভিযোগ, জোট সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই। অন্যদিকে, শুক্রবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী দাবি করেন, রাজ্যের টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দায়ী। কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রীর, নরেন্দ্র মোদী গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। পাশাপাশি, আর একটি বিস্ফোরক অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী। তিনি বলেন, কর্ণাটকের জোট সরকার ফেলতে স্পিকার আর রমেশ কুমারকে মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষ দিতে চেয়েছিল বিজেপি।
শুক্রবার, কুমারস্বামী একটি অডিও ক্লিপ সামনে এনে অভিযোগ করেন, বিধায়ক নন্দন গৌড়া কাঙ্কুরের পুত্র শারন গৌড়াকে ফোন করেছিলেন কর্নাটকের বিজেপি রাজ্য সভাপতি ইয়েদুরাপ্পা। শারনের বাবাকে মন্ত্রিত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে বলেন ইয়েদুরাপ্পা।

Comments
Loading...