ফের আক্রান্ত কাশ্মীরি, লখনউয়ে প্রকাশ্যে ফল ব্যবসায়ীকে লাঠিপেটা স্বঘোষিত ভিএইচপি নেতাদের, তীব্র নিন্দা বিরোধীদের

রুজি-রুটির জন্য ভিন রাজ্যে বসবাসকারী কাশ্মীরিদের ওপর ফের হামলা। এবার লখনউয়ে আক্রান্ত হলেন দুই কাশ্মীরি ফল ব্যবসায়ী। অভিযোগের তির বিশ্ব হিন্দু পরিষদের দিকে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বিকেলে। লখনউয়ের ডালিগঞ্জ এলাকায় দুই কাশ্মীরি ফল ব্যবসায়ীকে মারধরের এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে আক্রমণকারীদের বলতে শোনা যায়, ওই দুই ব্যবসায়ী কাশ্মীরি হওয়ার কারণেই তাদের মারধর করা হচ্ছে। গেরুয়া কুর্তা পরা দুই যুবকের রোষ থেকে বাঁচতে মাথা ঢেকে বসে পড়তে দেখা যাচ্ছে এক কাশ্মীরি ব্যবসায়ীকে। তাঁকে ছেড়ে দিতে আক্রমণকারীদের কাছে অনুরোধ করেন অন্য ফল ব্যবসায়ী। কিন্তু তাতেও থামেনি দুষ্কৃতীরা। বেধড়ক লাঠিপেটা করা হয় দুই কাশ্মীরি ব্যবসায়ীকে। ভাইরাল হওয়া আর একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, গেরুয়া কুর্তা পরা দুই যুবক প্রথমে কাশ্মীরি ফল ব্যবসায়ীর কাছে পরিচয়পত্র দেখতে চায়। বিপদ আঁচ করে তড়িঘড়ি দোকান গুটিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করলেও ব্যবসায়ীকে আটকে রেখে চলে মারধর। স্থানীয়রা দুষ্কৃতীদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও ফল হয়নি।
স্থানীয় সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন ধরেই ওই জায়গায় বসে ফল বিক্রি করেন দুই কাশ্মীরি ব্যবসায়ী। ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা ট্যুইট করে ঘটনার তীব্র নিন্দা করে প্রধানমন্ত্রী মোদী ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কড়া সমালোচনা করেছেন। বিরোধীরাও এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে।
ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বজরঙ্গ শঙ্কর নামে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যদিও ঘটনায় মূল অভিযুক্ত এখনও অধরা। ওই ব্যক্তি নিজেকে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের প্রেসিডেন্ট বলে দাবি করে নিজেই ফেসবুকে কাশ্মীরি ব্যবসায়ীদের উপর হামলার ভিডিও পোস্ট করে। ফেসবুকেই ঘটনার দায়ও স্বীকার করে ওই ব্যক্তি। পরে অবশ্য পোস্টটি ডিলিট করে দেওয়া হয়। এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া মেলেনি বিশ্ব হিন্দু পরিষদের।

 

Comments
Loading...