খাগড়াগড় কাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড কওসরের ২৯ বছরের জেল

খাগড়াগড় কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত কওসরকে ২৯ বছরের জেলের সাজা শোনাল আদালত। এর আগে এই ঘটনায় ৩১ জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালত, তার মধ্যে ৩০ জনের সাজা ঘোষণা আগেই শেষ।
২০১৪ সালে ২ অক্টোবর বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে বর্ধমানের খাগড়াগড়। জানা যায়, বাড়ির মালিক নূরুল হাসান চৌধুরী বাড়িটি শাকিল আহমেদ নামে এক ব্যক্তিকে ভাড়া দিয়েছিলেন। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ আমিনা বিবি, রাজিরা বিবি নামে দুই মহিলাকে গ্রেফতার করে।

[আরও পড়ুন- মালদায় কি হাত খালিই থাকবে? এবার শূন্য হাতে ফিরে যেতে আসিনি, মালদায় বললেন মমতা]  

পরে তদন্তের দায়িত্ব নেয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা NIA। বিস্ফোরণস্থল থেকে একাধিক বাংলা ও উর্দু ভাষায় লেখা আধপোড়া নথি পান তদন্তকারীরা। উদ্ধার হওয়া নথি থেকে বিস্ফোরণের সঙ্গে বাংলাদেশের জঙ্গি সংগঠন জামাত উল মুজাহিদ্দিন যোগের প্রমাণ মেলে। এমনকী ওই নথিতে জঙ্গি গোষ্ঠী আল কায়দার শীর্ষ নেতাদেরও নাম পাওয়া গেছে বলে জানান গোয়েন্দারা। জানা যায় ঘটনার মাস্টারমাইন্ড কওসর। বিস্ফোরণের পরেই বাংলাদেশে গিয়ে গা ঢাকা দেয় সে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে নাশকতার ছক নিয়ে ফের ভারতে আসে JMB এর এই সদস্য। ২০১৮ সালে বেঙ্গালুরু থেকে কওসরকে গ্রেফতার করে এনআইএ।
বুধবার খাগড়াগড় কাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড কওসর ওরফে বোমারু মিজানের সাজা ঘোষণা করল এনআইএ স্পেশাল কোর্ট।

Comments
Loading...