সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে দেশে সমকামী সম্পর্ককে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে আর গণ্য করা না হলেও, এখনই সমকামীদের বিবাহকে স্বীকৃতি দিতে নারাজ কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানিয়েছেন, যদি কোনও সমকামী যুগল বৈবাহিক সম্পর্কে আবদ্ধ হন, তবে তাঁরা আইনি স্বীকৃতি পাবেন না। কারণ, এই সম্পর্কিত কোনও বিধি এখনও পর্যন্ত দেশের আইনে নেই।
২০১৮ সালের ৬ সেপ্টেম্বর এক ঐতিহাসিক রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, সমকামী সম্পর্ককে আর কোনওভাবেই অপরাধ বলা যাবে না। একইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট সমকামী সম্পর্ককে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ নম্বর ধারাকেও বাতিলের কথা বলেছিল। তারপর থেকে দেশে সমকামী সম্পর্ককে আর অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয় না।
কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পরে বহু সংগঠন এবং এলজিবিটি সম্প্রদায়ের মানুষ দাবি করেছিলেন, সমকামীদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ককেও যেন আইনি স্বীকৃতি দেওয়া হয়। কিন্তু কেন্দ্র জানিয়েছে, এই সংক্রান্ত কোনও প্রস্তাব এখনও কেন্দ্রের কাছে জমা পড়েনি, তাই বর্তমান আইন অনুযায়ী সমকামীদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ককে আইনি স্বীকৃতি দেওয়া যাবে না।
তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন করেছিলেন, সমকামীদের বিয়েকে অন্যদের মতই আইনি মর্যাদা দেওয়ার বা আইনে পরিবর্তন আনার কোনও পরিকল্পনা কেন্দ্রের আছে কিনা? জবাবে আইনমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই বিষয়ে বর্তমানে কোনও প্রস্তাব সরকারের কাছে নেই। এর আগে সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্রের তরফেই বলা হয়েছিল, সমকামী সম্পর্ককে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য না করার বিষয়টি এবং সমকামী যুগলদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্কের বিষয়টি সম্পূর্ণ আলাদা। তাই সমকামী সম্পর্ক ফৌজদারি অপরাধ না থাকলেও, সমকামী যুগলদের মধ্যে সম্পর্কের বিষয়টি আলাদাভাবে বিবেচনা করা উচিত।

 

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা শুরু করেছি সাবস্ক্রিপশন অফার। নিয়মিত আমাদের সমস্ত খবর এসএমএস এবং ই-মেইল এর মাধ্যমে পাওয়ার জন্য দয়া করে সাবস্ক্রাইব করুন। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

India Coronavirus Death Toll