এবার উত্তর প্রদেশের আমেঠি! গণপিটুনিতে নিহত প্রাক্তন সেনা অফিসার

ফের যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে পিটিয়ে খুনের ঘটনা। এবার ঘটনাস্থল আমেঠি। প্রাক্তন সেনা অফিসারের বাড়িতে ঢুকে তাঁকে পিটিয়ে খুন করল কয়েকজন দুষ্কৃতী।
শনিবার গভীর রাতে উত্তর প্রদেশের আমেঠি জেলার গোদিয়া কা পূর্বা গ্রামে একটি দোকান লুঠ করার চেষ্টা করে কয়েকজন দুষ্কৃতী। ওই দোকান সংলগ্ন একটি বাড়িতেই সপরিবারে থাকতেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা ক্যাপ্টেন আমানুল্লাহ। চুরি ঘটনা দেখে ফেলায় এবং প্রতিবাদ করায় বছর ৬৪ র প্রাক্তন সেনা অফিসারের বাড়িতে চড়াও হয় দুষ্কৃতীরা। এরপর অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার আমানুল্লাহ ও তাঁর স্ত্রীকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। আমানুল্লাহর গলা টিপে তাঁকে খুনের চেষ্টা করা হয় বলে পুলিশে অভিযোগ করেন মৃত আমানুল্লার স্ত্রী। এরপর তাঁদের দড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর করা হয়। দুষ্কৃতীরা প্রাক্তন সেনা অফিসার আমানুল্লার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করার পর ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর। এরপর বাড়ি থেকে বেশ কিছু জিনিস লুঠ করে সেখান থেকে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।
কিছুদিন আগেই জমির দখল নিয়ে উত্তর প্রদেশের সোনভদ্রে আদিবাসীদের গুলি করে হত্যার অভিযোগ ওঠে গ্রামপ্রধানের বিরুদ্ধে। মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে রাজ্যে এই গণপিটুনিতে মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছে বিরোধীরা। উত্তর প্রদেশের একের পর এক গণপিটুনি ও অপরাধের ঘটনা দমন করতে না পারায় বিজেপি সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিরোধীরা।
শনিবার প্রাক্তন সেনা অফিসারকে পিটিয়ে খুনের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে ট্যুইট করেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়ঙ্কা গান্ধী। তিনি লেখেন, রাজ্যে অপরাধের মাত্রা যখন বেড়েই চলছে, তখন সরকার এসব লুকিয়ে রাখতেই ব্যস্ত। ট্যুইটে প্রিয়াঙ্কা প্রশ্ন তোলেন, এই খুনের ঘটনায় বিজেপি সরকার কি কোনও সমাধান করতে পারবে?

Comments
Loading...