সরকার ভাঙার চক্রান্ত চলছে, গুজরাত থেকে বাংলা চলবে না, মোদী-শাহকে নিশানা করে বিজেপিকে আক্রমণ তৃণমূল নেত্রীর

বিভিন্ন রাজ্যে সরকার ভাঙার চক্রান্ত চলছে। টাকা ছড়িয়ে আর এজেন্সি দিয়ে ভয় দেখিয়ে কর্ণাটক, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থানে নির্বাচিত সরকার ভাঙা হচ্ছে। এবার বিজেপির লক্ষ্য এ রাজ্য। বাংলায় সরকার ভাঙার চেষ্টা হচ্ছে। কিন্তু জেনে রাখুন, গুজরাত থেকে বাংলাকে শাসন করা যাবে না। বহিরাগত দিয়ে নয়, বাংলাই বাংলাকে চালাবে। ২১ জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সমাবেশ থেকে বার্তা দিলেন মমতা ব্যানার্জি। পাশাপাশি তীব্র কটাক্ষে বিঁধলেন বিজেপি নেতৃত্বকে।
করোনা পর্বে প্রকাশ্য সমাবেশের বদলে ভার্চুয়াল সমাবেশের আয়োজন করেছিল তৃণমূল। রাজ্যের বুথে বুথে তৃণমূলকর্মীরা টিভি স্ক্রিনের সামনে হাজির ছিলেন। চোখ ছিল মোবাইলেরও। দুপুর ২ টোয় কালীঘাটের পার্টি অফিস থেকে লাইভে আসেন মমতা। বলেন, এ বছর অতিমারি পরিস্থিতির জন্য প্রকাশ্য সমাবেশ করা গেল না। আগামী বছর ভোটে জিতে ঐতিহাসিক সমাবেশ করবে তৃণমূল। মমতা ব্যানার্জির কথায়, যা হবে সর্ববৃহৎ সমাবেশ।
এদিন ভার্চুয়াল সমাবেশ থেকে মমতা নিশানা করেন মোদী-অমিত শাহের বিজেপি সরকারকে। তাঁর অভিযোগ, বিভিন্ন মানুষকে ফোন করে বিধায়ক পদ পাইয়ে দেওয়ার টোপ দিচ্ছে বিজেপি। শিল্পী-সাহিত্যিকদের অ্যাকাউন্টে টাকা দিয়ে তাঁদের বিজেপিতে আসার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। মমতা ব্যানার্জির অভিযোগ, কেন্দ্রীয় এজেন্সি এবং সিপিএমের কিছু নেতাকে দিয়ে বাংলা দখলের চক্রান্ত করেছে বিজেপি। কিন্তু তা হওয়ার নয়। তৃণমূল কর্মীদের প্রতি মমতার আবেদন, ২১ এর ভোটে সব জায়গায় যাতে বিজেপির জামানত বাজেয়াপ্ত হয়, তা নিশ্চিত করুন। মানবিকতার মধ্যে দিয়ে বিজেপির চক্রান্তের বদলা নেবে বাংলা, বলেন তৃণমূল নেত্রী।
লোকসভা ভোটে কিছু আসন পেয়ে বিজেপি লম্ফঝম্প শুরু করেছে। কিন্তু সেই লম্ফঝম্পে বয়ে গিয়ে বিজেপিকে বিশ্বাস করবেন না। মমতা ব্যানার্জি বলেন, তাহলেই সর্বনাশ হবে। জীবন যাবে, জীবিকাও খোয়াবেন। এ কথা বলার জন্য আমার উপর অত্যাচার হবে, কিন্তু আমি গুলি-বোমা-বন্দুক-এজেন্সিকে ভয় পাই না। মমতার কথায়, মনে রাখবেন মৃত বাঘের চেয়েও আহত বাঘ বেশি ভয়ঙ্কর। মোদী-অমিত শাহকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, দাদা-ভাই সঙ্গী হয়ে কুকর্ম করে যাচ্ছেন। ভালো কাজ করুন, সবার সমর্থন পাবেন। বিজেপিকে ভোট দিলে কী হয় তা দেখতে হলে চলে যান ভাটপাড়া, বারাকপুর। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারটুকু নেই। রাজ্যের বিজেপি নেতাদের নিয়েও একপ্রস্থ কটাক্ষ করেন মমতা ব্যানার্জি। প্রশ্ন তোলেন, এতদিন বাংলায় রাজনীতি করছি, কই কোনওদিন তো এদের দেখিনি, এখন কোথা থেকে উদয় হয়ে গায়ের জোর ফলাচ্ছে! এদের রাজনৈতিক জন্ম কোথায়?
এদিন মোদী-শাহকে আক্রমণের পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের উদ্দেশেও বার্তা দেন মমতা। বলেন, মানুষের পাশে থাকতে হবে। কেউ কোনও অনৈতিক কাজ করলে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। তৃণমূল নেত্রীর কথায়, বুথের কর্মীরাই আমার সম্পদ। পাশাপাশি বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেসের কর্মীদের প্রতি মমতা কৌশলী বার্তা, যদি মনে করেন ওই দলে গিয়ে ভুল করেছেন, তৃণমূলের দরজা আপনাদের জন্য খোলা রয়েছে, চলে আসুন। তারপরই প্রত্যয়ী মমতার ঘোষণা, ২০২১ সালে আবার তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসছে। পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের আশ্বস্ত করে বলেন, চিন্তা করবেন না, হাম হ্যায় না!

Comments
Loading...