আমি একটা বড়ো গাধা, বুঝতেই পারিনি এদের এত গুণ! কাঁথিতে দাঁড়িয়ে অধিকারীদের তোপ Mamata-র

এগরায় শাহের সভায় বিজেপিতে যোগ শিশির অধিকারীর

গত বছর শুভেন্দুর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সময় থেকে যে চাপানউতোরের শুরু তা এখন শেষ লগ্নে। পূর্ব মেদিনীপুরে প্রচারে গিয়ে মমতা ব্যানার্জির রবিবারের প্রথম গন্তব্য ছিল দক্ষিণ কাঁথি বিধানসভা কেন্দ্র। সেখানেই নাম না করে নজিরবিহীন আক্রমণ শানালেন তৃণমূল নেত্রী। নিশানা সভা মঞ্চ থেকে সামান্য দূরে শান্তিকুঞ্জের বাসিন্দারা। ঘটনাচক্রে একই সময় এগরায় অমিত শাহের সভায় বিজেপিতে যোগ দিলেন শিশির অধিকারী।

এতদিন অধিকারীদের তরফে চাঁচাছোলা আক্রমণ ভেসে এলেও তৃণমূল নেত্রী যথেষ্ট নিচু লয়ে নিশানা সাধছিলেন, এমনটাই মনে করেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। ভোটের প্রাক্বালে রবিবার তাতে ছেদ পড়ল। মমতা ব্যানার্জি নজিরবিহীন ভাবে নিশানা করলেন শুভেন্দু অ্যান্ড কোম্পানিকে। তবে এবারও নাম করলেন না কারও। বললেন, আমি একটা বড়ো গাধা। নিজেকে গাধা বলছি তার কারণ, আমি বুঝতেই পারিনি এদের এত গুণ! এত টাকা করেছে যে সেই টাকা বাঁচাতেই ও পালিয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ সাধারণ মানুষকে দীর্ঘদিন ধরে লুট করে অধিকারী পরিবার হাজার হাজার টাকা করেছে। সেই টাকা খরচ হবে ভোট কিনতে। মমতা বলেন, টাকা নেবেন কি নেবেন না আপনার ব্যাপার। কিন্তু টাকা নিয়ে নিজের ভোট বিক্রি করবেন না। 

দক্ষিণ কাঁথির সভার শুরু থেকেই মমতা ব্যানার্জির নিশানায় ছিল ঢিল ছোঁড়া দূরত্বের শান্তিকুঞ্জ। মমতা ব্যানার্জি বলেন, আগে এখানে একজনের জমিদারি চলত। পূর্ব মেদিনীপুর যেন কেন্দ্রশাসিত এলাকা। নির্বেদ রায়কে পছন্দ নয়। তাই নির্বেদকে ভোটে হারিয়ে দিয়েছে। ওদের কথা যারা শুনবে তারা থাকবে, যারা শুনবে না তারা থাকবে না। 

এখানেই শেষ নয়, তৃণমূল নেত্রী স্পষ্ট জানান, যারা বিজেপির সাথে যোগাযোগ রাখে, রাতে কানে কানে আর দিনে চুমু খায়, তাঁদের সাথে আমরা যোগাযোগ রাখি না। তারা গেল না এলো আমার কিছু যায় আসে না। 

এরপরই মমতা ব্যানার্জি বলেন, একসময় অনেক ভালবাসতাম। আমি নিজে মা তারার ছবি এঁকে দিয়ে এসেছিলাম বাড়িতে। আর আজ সেই গদ্দার, মীরজাফর, বিশ্বাসঘাতকের দল বিজেপির হাত ধরেছে। আর বলছে ২০১৪ সাল থেকে আমাদের সম্পর্ক ছিল! তার মানে ঘরে ঢুকে সিঁদ কেটেছে। এদের থেকে বড়ো গদ্দার আর কেউ হতে পারে না এটা মনে রাখবেন। এদের হাত থেকে মেদিনীপুরকে মুক্ত করতে হবে, তাহলেই মেদিনীপুরের মানুষ স্বাধীনতা পাবে। বলেন মমতা। কাঁথি উত্তরের সভা থেকেও একইভাবে অধিকারী পরিবারকে নিশানা করেন মমতা ব্যানার্জি।   

Comments
Loading...