কুর্তা পাঠানো তো সৌজন্য, মোদীকে কুর্তা পাঠানো বিতর্কে প্রতিক্রিয়া মুখ্যমন্ত্রীর

কুর্তা পাঠালে দোষটা কোথায়? দুর্গা পুজোয় সকলকেই কিছুই না কিছু পাঠাই আমরা, মোদীর ‘কুর্তা’ মন্তব্যের পর প্রতিক্রিয়া দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
বছরে তাঁর জন্য দু’একবার কুর্তা পাঠান ‘দিদি’, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী তাঁকে মিষ্টি পাঠান শুনে তিনিও তারপর থেকে মিষ্টি পাঠাতে শুরু করেন, বুধবার একটি ‘অরাজনৈতিক’ সাক্ষাৎকারে অক্ষয় কুমারকে এমনই অজানা তথ্য জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যা মুহূর্তেই রাজনৈতিক মহল থেকে সাধারণ মানুষের কাছে চর্চার বিষয় হয়ে ওঠে। বৃহস্পতিবার বীরভূমের নির্বাচনী সভা থেকে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দুর্গা পুজোর সময় সকলকেই কিছু না কিছু পাঠাই আমরা। তবে শুধু নরেন্দ্র মোদীকেই নয়, যাঁরা গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন, সবাইকেই উপহার পাঠান তিনি, জানালেন মমতা। তবে এই সৌজন্যের কথা মোদীর মতো তিনি বলে বেড়ান না বলে প্রধানমন্ত্রীকে খোঁচা দিলেন তৃণমূল নেত্রী।
এরপরেই বোলপুরের সভা থেকে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে একের পর এক ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, মোদী ভালোভাবেই জানেন, মমতাই পারেন বিজেপির সরকার উল্টে দিতে। তাই এ রাজ্যে বারবার তাঁকে সভা করার জন্য ছুটে আসতে হয় বলে কটাক্ষ করেন তৃণমূল নেত্রী। বুধবারে বোলপুরের নির্বাচনী সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেছিলেন, ‘গুরুদেবের শান্তিনিকেতনে গুণ্ডারাজ চলছে’। সিউড়ির মাটি থেকে বৃহস্পতিবার মমতার দাবি, সম্পূর্ণ ভুল বার্তা দিয়েছেন মোদী। তাঁর মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে, ডাক্তার দেখানো দরকার। উল্টে গোটা নির্বাচনে টাকা ছড়িয়ে ‘মোদীর পার্টি’ ভোট কিনতে চাইছে বলে আক্রমণ শানান মমতা।

Comments
Loading...