গরিব পুরোহিতদের মাসিক ভাতা দেবে রাজ্য, যাজকরা চাইলেও পাশে দাঁড়াবে সরকার, বললেন মমতা

এবার রাজ্যের কয়েক হাজার গরিব পুরোহিতকে মাসিক ভাতা দেবে রাজ্য। বাংলা আবাস যোজনায় তাঁদের বাড়ি তৈরি হবে। সোমবার নবান্নে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির।

দুর্গাপুজোর প্যান্ডেল কেমন হবে, রাজ্যের করোনা পরিসংখ্যান ও পরিস্থিতি এবং হিন্দি বোর্ড গঠনের পাশাপাশি আরও একাধিক ঘোষণা করেন মমতা। যার শেষে ছিল রাজ্যের গরিব পুরোহিতদের মাসিক সাহায্যের কথা। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, রাজ্যের প্রায় আট হাজার পুরোহিত প্রতি মাসে এক হাজার টাকা করে ভাতা পাবেন। পুজোর সময় থেকেই সাহায্য দিতে সচেষ্ট হবে তাঁর সরকার। পরবর্তীতে আরও গরিব পুরোহিত যাঁরা মূলত গ্রামাঞ্চলে থাকেন এবং যজমান বৃত্তি করে সংসার চালান তাঁদের সাহায্য প্রদানের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। শুধু ভাতাই নয়, আর্থিকভাবে পিছিয়ে থাকা কয়েক হাজার পুরোহিতকে বাংলা আবাস যোজনায় বাড়ি করে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন মমতা। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ওয়াকফ বোর্ডের তরফে মোয়াজ্জেমদের ভাতা দেওয়া হয়। হিন্দু ধর্মের পুরোহিতদেরও পাশে দাঁড়াচ্ছে রাজ্য। তাঁদের সঙ্গে বেশ কয়েকবার বৈঠক হয়েছে। দুরবস্থার কথা জেনেই এই পদক্ষেপ করছে সরকার। এর পিছনে আর ‘অন্য কারণ’ নেই বলে মন্তব্য মমতার। তাঁর কথায়, “এর পিছনে কেউ অন্য কারণ দেখবেন না। খ্রিষ্ট ধর্মের যাজক, পাদরিরা চাইলে তাঁদের পাশেও দাঁড়াবে সরকার।”

সামনে ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। মোয়াজ্জেমদের ভাতা প্রদানের ইস্যু নিয়ে মমতার সরকারের বিরুদ্ধে ধর্মীয় পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ করে আসছিল বঙ্গ বিজেপি। গরিব পুরোহিতদেরও ভাতা প্রদানের কথা ঘোষণা করে ভোটের আগে পাল্টা চাল দিলেন তৃণমূল নেত্রী, এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Comments
Loading...